বিয়ানীবাজার সংবাদ

ইউরোপ-আ’মেরিকা-কানাডার স্বপ্নে বিয়ানীবাজারের শিক্ষার্থীরা আইইএলটিএসমুখী

বিয়ানীবাজার টাইমস- একটা সুন্দর, সাবলীল উন্নত জীবন সবাই প্রত্যাশা করে। সেই প্রত্যাশা থেকেই ইউরোপের উদ্দেশ্য বিয়ানীবাজারের হাজার তরুণ-তরুণী কিংবা যুবক- যুবতীদের এখন আইএলটিএস এর প্রতি ঝোঁক। প্রবাসী অধ্যুষিত বিয়ানীবাজারের বেশির ভাগ মানুষ বসবাস করেন দেশের বাইরে। তারই ধারাবাহিকতায় এই অঞ্চলের তরুণ-তরুণী, যুবক-যুবতীরা সবাই যেতে চান ইউরোপ কিংবা আ’মেরিকায়, স্বপ্ন দেখেন একটা সুন্দর ভবিষ্যতের।

বাংলাদেশ থেকে ইউরোপ আ’মেরিকায় যাওয়ার সহ’জ কোন পথ নেই। সচরাচর দেওয়া হয় না ওয়ার্কপার্মিট ভিসাও। আর সেজন্য একমাত্র পথ হচ্ছে আইএলটিএস কোর্স করে স্টুডেন্টস ভিসা নিয়ে স্বপ্নের দেশে প্রবেশ করা। তাইতো অনিশ্চিত এই জীবন থেকে বেড়িয়ে যে করেই হোক তারা যেতে চায় নিজের স্বপ্নের দেশে, পেতে চায় একটি সুন্দর ভবিষ্যত।

বিয়ানীবাজার উপজে’লার বেশ কয়েকটি আইএলটিএস কোর্স প্রভাইডকারি প্রতিষ্ঠান ঘুরে দেখা যায় হাজার হাজার শিক্ষার্থী ভর্তি রয়েছেন প্রতিষ্ঠান গুলোতে এই কোর্সে। তাদের সবার একটিই আশা, ভালো স্কোর নিয়ে ইউরোপের কোন একটি দেশে প্রবেশ করা।

লিজা আক্তার বলেন তিনি আইএলটিস করছেন কানাডা যাওয়ার জন্য। তিনি জানান দেশে থেকে কোনভাবেই উন্নত জীবন লিড করা সম্ভব নয়। ইফতি নামে একজন তরুণ জানান নিজের সর্বোচ্চ দিয়ে চেষ্টা করছেন ভালো স্কোর করার। তিনিও যেতে চান ইউরোপের একটি দেশে।

এখন সকাল হলেই বিয়ানীবাজারের ইংরেজী ভাষা প্রশিক্ষণ ​প্রতিষ্ঠান গুলোতে বিভিন্ন শিডিউলে আসেন শিক্ষার্থীরা। নিজেদের সর্বোচ্চ দিয়ে চেষ্টা করে যাচ্ছেন তারা ভালো স্কোরের। যাতে স্বপ্নের দেশের একটি স্টোডেন্ট ভিসা তাদের কপালে জোটে।

একেকজন শিক্ষার্থীকে আইএলটিএস কোর্স কপ্লিট করে পরিক্ষা দিয়ে রেজাল্ট পাওয়া পর্যন্ত খরচ করতে হয় প্রায় ৩০ থেকে ৩৫ হাজার টাকা পর্যন্ত। তারপরও অনিশ্চিত থাকে স্বপ্নের সেই দেশের ভিসা পাবেন কী’ না। অনেক সময় অনেককেই ভিসা না পেয়ে মন খা’রাপ করে বসে থাকতে হয় আবার অনেকেই ভিসা পেয়ে সাফল্যের হাসি দিয়ে বাড়ি ফেরেন।

তবে বিয়ানীবাজারে পূর্বের তুলনায় বর্তমানে বেড়েছে আইএলটিএস কোর্স করার প্রবণতা। তবে এখন তারা কতটা সফল হচ্ছে , কতজনই বা ভিসা পাচ্ছে সেটাই দেখার পালা

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!