আন্তর্জাতিক

বিশ্বের পঞ্চ’ম অর্থনৈতিক শক্তিধর দেশ ভা’রত

নিউজ ডেস্ক- করো’নাসহ নানা সংকট কাটিয়ে যু’ক্তরাজ্যকে পেছনে ফেলে বিশ্বের অর্থনৈতিক শক্তিধর দেশের তালিকায় এখন পঞ্চ’ম স্থানে উঠে এসেছে ভা’রতের নাম। ফলে ব্রিটিশরা নেমে গেছে ষষ্ঠ অবস্থানে, যা দেশটির সরকারকে আরও চাপের মধ্যে ফেলতে পারে। খবর ব্লুমবার্গের।

আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) জিডিপি পরিসংখ্যান বলছে, ভা’রত ২০২১ সালের শেষ তিন মাসে যু’ক্তরাজ্যকে ছাড়িয়ে পঞ্চ’ম বৃহত্তম অর্থনৈতিক শক্তিধর দেশে পরিণত হয়েছে এবং ২০২২ সালের প্রথম প্রান্তিকে ব্যবধান আরও বাড়িয়েছে। মা’র্কিন ডলারের ওপর ভিত্তি করে এ হিসাব করা হয়েছে।

গত কয়েক মাস ধরেই যু’ক্তরাজ্যের রাজনৈতিক টানাপড়েন চলছে। প্রধানমন্ত্রী পদে বরিস জনসনের উত্তরসূরি কে হবেন, লিজ ট্রাস না কি ভা’রতীয় বংশোদ্ভূত ঋষি সুনক, তা নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে। তার আগে বিশ্বের সব চেয়ে বড় অর্থনীতির তালিকা প্রকাশ করল আইএমএফ।

আগামী সোমবার (৫ সেপ্টেম্বর) বরিস জনসনের উত্তরসূরি বেছে নেবেন কনজারভেটিভ পার্টির সদস্যরা। অনেকের বক্তব্য, প্রধানমন্ত্রী পদে যেই নির্বাচিত হবেন, তাকেই এই কঠিন পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে হবে। শুধু তাই নয়, চার দশকের মধ্যে দ্রুততম মূল্যস্ফীতির মুখোমুখি এবং মন্দার ক্রমবর্ধমান ঝুঁ’কির সম্মুখীন একটি দেশ পরিচালনার ভা’র নিতে হবে তাকে।

অন্যদিকে, গত অর্থবছরের শেষ প্রান্তিকে বড় লাফ দিয়ে ব্রিটেনকে ছাপিয়ে গেছে ভা’রত। শেষ তিন মাসে ভা’রতীয় শেয়ারবাজার ঘুরে দাঁড়াতে দেখা গেছে। শুধু তাই নয়, পূর্বাভাস কোভিড-ধাক্কায় কাটিয়ে চলতি অর্থবছরেও ভা’রতের অর্থনীতির প্রবৃদ্ধি সাত শতাংশ হারে বাড়তে পারে।

সমন্বয়ের ভিত্তিতে এবং সংশ্লিষ্ট প্রান্তিকের শেষ দিনে ডলারের বিনিময় হার ব্যবহার করে হিসাব করলে, এ বছরের জানুয়ারি থেকে মা’র্চ, অর্থাৎ প্রথম প্রান্তিকে ‘ন্যূনতম’ নগদ অর্থে ভা’রতীয় অর্থনীতির আকার ছিল ৮৫ হাজার ৪৭০ কোটি ডলার। একই সময় যু’ক্তরাজ্যের অর্থনীতির আকার ছিল ৮১ হাজার ৬০০ কোটি ডলার।

বিশ্বব্যাংকের সাম্প্রতিক রিপোর্টেও বলা হয়েছে, চীনকে টপকে বিশ্বের দ্রুততম আর্থিক বৃদ্ধির শিরোপা ভা’রত পেতে চলেছে। প্রকাশিত পরিসংখ্যান থেকে জানা যাচ্ছে, এপ্রিল-জুন প্রান্তিকে আর্থিক বৃদ্ধির হার দাঁড়িয়েছে ১৩.৫ শতাংশ। অর্থাৎ, গত বছর এপ্রিল-জুনের তুলনায় এ বছরের এপ্রিল-জুনে জিডিপির হার ১৩.৫ শতাংশ বেড়েছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কোভিডের ধাক্কা কাটিয়ে ভা’রতে আবার গতি পেয়েছে অর্থনীতির চাকা।

আইএমএফের পূর্বাভাস বলছে, ডলারের শর্তে বার্ষিক হিসাবে এ বছর যু’ক্তরাজ্যকে ছাড়িয়ে যাচ্ছে এশিয়ার পাওয়ারহাউস ভা’রত। তাদের সামনে থাকছে কেবল যু’ক্তরাষ্ট্র, চীন, জা’পান ও জার্মানি। অথচ এক দশক আগেও বিশ্বের বৃহত্তম অর্থনীতিগুলোর মধ্যে ১১তম ছিল ভা’রত, আর যু’ক্তরাজ্য ছিল পঞ্চ’ম।

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!