মৌলভীবাজার

কমলগঞ্জে হ’ত্যাচেষ্টা মা’মলায় ইউপি সদস্য কারাগারে

নিউজ ডেস্ক- মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের রহিমপুর ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের গ্রাম্য সালিশকারী আব্দুল খালিক (৬৮) কে কু’পিয়ে হ’ত্যা চেষ্টার ঘটনায় মৌলভীবাজার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আ’দালতে মা’মলা’টি দায়ের করা হয়।

আব্দুল খালিক বাদী হয়ে গত ২৯ জুন করা মা’মলার আসামীরা হলেন রহিমপুর ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের বর্তমান সদস্য মৃ’ত ওয়াদ মিয়ার পুত্র বুলবুল আহম’দ ওয়াতির ও মৃ’ত হাজী আলাউদ্দিন এর পুত্র নজির মিয়াসহ ৩/৪জন। আ’দালত মা’মলা’টি আমলে নিয়ে কমলগঞ্জ থা’নার ওসিকে এজাহার হিসেবে গণ্য করতে নির্দেশ প্রদান করেন।

বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) মৌলভীবাজার আ’দালতে ইউপি সদস্য বুলবুল আহমেদ ওয়াতির আত্মসর্মপন করলে বিজ্ঞ আ’দালত জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে প্রেরনের নির্দেশ দেন।

উল্লেখ্য গত ২৭ জুন দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে রামচন্দ্রপুর কমিউনিটি ক্লিনিকে চিকিৎসা নিয়ে বাড়িতে ফেরার পথে উজির মিয়ার দোকানের সামনে আসলে রহিমপুর ইউনিয়নের ওয়ার্ড সদস্য বুলবুল আহম’দ ওয়াতির তাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকেন। এ সময় তিনি বাঁ’ধা দিলে পুর্ব পরিক’ল্পিতভাবে তাদের হাতে থাকা দা ও দেশীয় অ’স্ত্র দিয়ে অ’তর্কিতে হা’মলা চালিয়ে মা’রাত্মক ভাবে জ’খম করেন। পরে স্থানীয়রা গুরুতর আ’হত আব্দুল খালিককে উদ্বার করে প্রথমে কমলগঞ্জ উপজে’লা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতা’লে রেফার করেন।

আব্দুল খালিক জানান, আমি এখনও পুরোপুরি সুস্থ্য হয়ে উঠতে পারিনি। আমাকে জ’খম করে তারা ক্ষান্ত নয়,আ’দালতে মা’মলা করায় তারা ক্ষিপ্ত হয়ে প্রা’ণ নাশ ও মিথ্যা মা’মলার হু’মকি ধমকি দিচ্ছে। ইউপি সদস্য বুলবুল আহম’দ ওয়াতির তার আত্মীয় স্বজন ও সহযোগীদের দিয়ে ফেসবুকের মাধ্যমে হা’মলার ঘটনাকে ধামাচাপা দিতে মিথ্যার আশ্রয় নিয়ে সামাজিক ভাবে হেয় করার জন্য আমা’র বিরুদ্বে বিভিন্ন কুৎসা রটনা করছে।

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!