বিয়ানীবাজার সংবাদ

বিয়ানীবাজারে বাড়ছে ব’ন্যার পানি, আশ্রয় কেন্দ্রে মানুষের ঢল, ত্রানের জন্য হাহাকার

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ বিয়ানীবাজারে বাড়ছে ব’ন্যার পানি, নতুন করে প্লাবিত হচ্ছে এলাকার পর এলাকা। আশ্রয় কেন্দ্রগুলোতে বাড়ছে ব’ন্যা দুর্গত মানুষের ব্যাপক ভিড়। তবে আশ্রয় কেন্দ্রে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও স্বেচ্ছাসেবীরা সহযোগীতার হাত বাড়িয়ে দিলেও মিলছেনা সরকারি ত্রান। এমন অ’ভিযোগ মানুষের।

গত কয়েকদিনের টানা বৃষ্টি ও ভা’রত থেকে আসা পাহাড়ি ঢলে প্রথমে সুরমা’র পানি কমে গেলেও এখন বাড়ছে কুশিয়ারা ও সুনাই নদীর পানি। তাতে করে লাউতা-মোল্লাপুর, মুড়িয়া, তিলপাড়া ও মাথিউরার বিভিন্ন এলাকা নতুন করে প্লাবিত হয়েছে। এসব এলাকার প্রায় ৮০ ভাগ মানুষ এখন পানিব’ন্দি। এছাড়াও বারইগ্রাম-বিয়ানীবাজার-সিলেট আঞ্চলিক মহাসড়কে যান চলাচল সীমিত হয়ে পড়েছে।

সরেজমিনে লাউতা, তিলপাড়া ও মুড়িয়ার কয়েকটি আশ্রয়কেন্দ্র ঘুরে দেখা যায়, আশ্রয়কেন্দ্রে বানভাসি মানুষের ভিড় বাড়ছে। তারা বলছেন, একান্ত বাধ্য হয়েই পরিবারের বেশীরভাগ সদস্য আশ্রয় কেন্দ্রে এসে উঠছেন। আশ্রয়কেন্দ্রে প্রাথমিকভাবে খাবার দাবারের ব্যবস্থা করছেন ইউপি চেয়ারম্যানগন, তবে সময়ের সাথে সাথে এগিয়ে আসছেন স্থানীয় বিত্তবান এবং স্বেচ্ছাসেবীরা। আশ্রয়কেন্দ্রে আসা বানভাসিদের অ’ভিযোগ সরকারি ত্রান মিলছেনা।

মুড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান ফরিদ আল মামুন জানান, তার ইউনিয়নের প্রায় ৯০ শতাংশ এলাকা ব’ন্যায় প্লাবিত, প্রয়োজনের তুলনায় সরকারি ত্রান কম পাওয়ায় হিমশিম খেতে হচ্ছে। তবে স্থানীয় অনেক রাজনীতিবিদ, বিত্তসালী ও স্বেচ্ছাসেবী সংঘটন এগিয়ে আসছে।

এই ইউনিয়নের বিচ্ছিন্ন একটি জনপদ চাতলপারে প্রবাসীদের অর্থায়নে ত্রান উপজে’লা চেয়ারম্যান আবুল কাশেম পল্লব। তিনি জানান, মানুষের অবস্থা ভ’য়াবহ শোচনীয়, প্রয়োজনের তুলনায় আম’রা মানুষকে অল্পই দিচ্ছি। তিনি দেশে-বিদেশে থাকা সকল বিত্তশালী বিয়ানীবাজারবাসীকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!