খেলাধুলা

সকালের ভ’য় তাড়িয়ে জোড়া সেঞ্চু’রিতে বাংলাদেশের দিন

নিউজ ডেস্কঃ নতুন বলে শ্রীলঙ্কার দুই পেসার কাসুন রাজিথা ও আসিথা ফার্নান্দো আ’গুন ঝরিয়েছিলেন। তারা দুজন মিলে দিনের খেলার বয়স পৌনে এক ঘণ্টা হওয়ার আগেই তুলে নিয়েছিলেন পাঁচ উইকেট। নিন্দুক-সমালোচকরা তখন, কত রানে অলআউট হবে বাংলাদেশ- সেই হিসেব কষতে ব্যস্ত।

অবশ্য ৪২ মিনিটের মধ্যে ৬.৫ ওভা’রে মাত্র ২৪ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে ফেলার পর এমন ভাবনা আসাই স্বাভাবিক। তবে সব আশ’ঙ্কা, দুর্ভাবনা তুড়ি মে’রে উড়িয়ে দিয়েছেন লিটন দাস ও মুশফিকুর রহিম। দু’জনই হাঁকিয়েছেন সেঞ্চু’রি, ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে গড়েছেন ইতিহাস, দলকে নিয়ে গেছেন নিরাপদ অবস্থানে।

মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম দিন শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৫ উইকে’টে ২৭৭ রান। ক্যারিয়ারের নবম সেঞ্চু’রিতে মুশফিক ১১৫ ও তৃতীয় সেঞ্চু’রি হাঁকানো ক্যারিয়ারসেরা ইনিংসে লিটন করেছেন ১৩৫ রান। ইতিহাসগড়া এ অবিচ্ছিন্ন জুটিতে এসেছে ২৫৩ রান।

দুই দিনের ঝটিকা সফরের শেষ দিনে আজ মাঠে বসেই প্রথম সেশনের খেলা দেখেছেন আইসিসি চেয়ারম্যান গ্রেগ বার্কলে। তার সামনে সকালের সেশনের প্রথম ঘণ্টা পুরোপুরি নিজের করে নিয়েছিল লঙ্কানরা। আসিথা ও রাজিথার তোপে মাত্র ২৪ রানেই সাজঘরে ফিরে বাংলাদেশের প্রথম পাঁচ ব্যাটার।

টস জিতে ব্যাট করতে নেমে ইনিংসের দ্বিতীয় বলেই সাজঘরের পথ ধরেন মাহমুদুল হাসান জয়। মাত্র পাঁচ টেস্টের ক্যারিয়ারে জয়ের এটি চতুর্থ ডাক। তার দেখানো পথে হাঁটতে সময় নেননি তামিম ইকবাল (০), নাজমুল হোসেন শান্ত (৮), মুমিনুল হক (৯) ও সাকিব আল হাসানরা (০)। মাত্র ৬.৫ ওভা’রেই সাজঘরে ফিরে যান এ পাঁচ ব্যাটার।

কাসুন রাজিথার বলে সাকিব আউট হওয়ার পরপরই প্রেসিডেন্টস বক্সের ভেতর থেকে বাইরে চলে আসেন আইসিসি চেয়ারম্যান বার্কলে। মজার বিষয় হলো, তিনি বাইরে বসার পর থেকে প্রথম সেশনে আর উইকেট হারায়নি বাংলাদেশ দল, ৪২ রানের জুটি গড়ে মধ্যাহ্ন বিরতিতে যান লিটন ও মুশফিক।

এরপর দিনের বাকি অংশ পুরোপুরি নিজেদের করে নেন মুশফিক ও লিটন। এরই মধ্যে ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ রানের জুটির রেকর্ড গড়েছেন এ দুজন। এর আগে ২০০৭ সালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষেই কলম্বোতে ষষ্ঠ উইকে’টে ১৯১ রান যোগ করেছিলেন মুশফিক ও মোহাম্ম’দ আশরাফুল। এবার লিটনকে নিয়ে সেই রেকর্ড ভাঙলেন মুশফিক।

শুধু তাই নয়, ২৫ রানের কমে ৫ উইকেট পতনের পর সর্বোচ্চ জুটির বিশ্বরেকর্ডও গড়েছেন তারা। এতোদিন ধরে ২৫ রানের কমে ৫ উইকেট পতনের পর সর্বোচ্চ রানের জুটির রেকর্ড ছিল পা’কিস্তানের ওয়ালিস ম্যাথিয়াস ও সুজাউদ্দিনের দখলে। দলীয় ২২ রানে ৫ উইকেট পড়ার পর তারা দুজন মিলে ১৯৫৯ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তৎকালীন ঢাকা স্টেডিয়ামে গড়েছিলেন ৮৬ রানের জুটি। সেটি ভেঙে ২৫৩ রান করে ফেলেছেন মুশফিক ও লিটন।

বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস: ২৭৭/৫, ৮৫ ওভা’র (লিটন দাস ১৩৫*, মুশফিকুর রহিম ১১৫*, মুমিনুল হক ৯, নাজমুল হোসেন শান্ত ৮, সাকিব আল হাসান ০, মাহমুদুল হাসান জয় ০, তামিম ইকবাল ০; কাসুন রাজিথা ৩/৪৩, আশিথা ফার্নান্দো ২/৮০)।

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!