কানাইঘাট

কানাইঘাটে প্রতিপক্ষের হা’মলায় একজনের পা বিচ্ছিন্ন

কানাইঘাট প্রতিনিধিঃ- সিলেটের কানাইঘাটে গোষ্ঠিগত দ্বন্ধের জের ধরে কা’মাল উদ্দিন নামের ৪৩ বছরের এক ব্যক্তিকে এলোপাতাড়ীভাবে কু’পিয়ে গুরুতর জ’খমের পর ডান পা বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছে প্রতিপক্ষ। পু’লিশ একদিন পর কে’টে নেওয়া পায়ের অংশ উ’দ্ধার করতে সক্ষম হয়েছে। এ ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার বিকেল ৫টার দিকে উপজে’লার দক্ষিন বানীগ্রাম ইউনিয়নের ছত্রপুর গ্রামে।

পু’লিশ ঘটনার সাথে জ’ড়িত থাকার দায়ে ফাতেহা বেগম নামে এক মহিলাকে আ’ট’ক করেছে। এছাড়া জিজ্ঞাসাবাদের জন্য স্থানীয় ইউপি সদস্য আফতাব উদ্দিনও থা’না পু’লিশ হেফাজতে রয়েছেন।

প্রতক্ষদর্শীদের কাছ থেকে জানা যায় গোষ্ঠিগত দ্বন্দের জের নিয়ে ছত্রপুর গ্রামে আদিপত্য বিস্তারে দীর্ঘদিন ধরে গ্রামের মৃ’ত এবাদুর রহমান ও মৃ’ত খলিলুর রহমানের গোষ্ঠির মধ্যে বিরোধ চলছিল। এর জের ধরে উভ’য় পক্ষের মধ্যে মাঝে মধ্যে অ’প্রীতিকর ঘটনা ঘটত। অনুমান ২ বছর পূর্বে এ দ্বন্ধের জের ধরে এবাদুর রহমান কা’মাল উদ্দিন গোষ্টির লোকদের হাতে মা’রামা’রিতে নি’হত হন। এবাদুর রহমান নি’হত হলে কা’মাল উদ্দিনসহ তার পক্ষের বহুলোকের বি’রুদ্ধে হ’ত্যা মা’মলা দায়ের করা হয়। সেই মা’মলায় কা’মাল উদ্দিন প্রায় ৮ মাস জে’ল খেটে অনুমান বছর খানিক পূর্বে জামিনে বেরিয়ে আসেন। এর আগে এবাদুর রহমানের গোষ্টির লোকজনের হাতে কা’মাল উদ্দিন দু’দফা হা’মলার শিকার হয়ে মা’রাত্মক আ’হত হয়েছিলেন বলে স্থানীয়রা জানান।

কা’মাল উদ্দিন জামিনে বেরিয়ে আসার পর থেকে তার উপর এবাদুর রহমানের গোষ্ঠির লোকজন ক্ষুব্দ ছিল। গত শনিবার বিকেল ৫টার দিকে কা’মাল উদ্দিন নিজ বাড়ী থেকে গাছবাড়ী বাজারে যাওয়ার পথিমধ্যে এবাদুর রহমানের গোষ্ঠির ফয়জুল হকের পুত্র মামুন আহম’দের বাড়ীর পাশে আসা মাত্রই তার উপর মামুন আহম’দসহ ৮/১০ জন দেশীয় ধারালো অ’স্ত্র, কুড়াল ইত্যাদি নিয়ে অ’তর্কিত হা’মলা চালায়

হা’মলাকারীরা কা’মালের ডান ও বাম পা, দুইহাতে কোপিয়ে ধারালো র’ক্তাক্ত জ’খম করে ডান পা হাটুর নীচ অংশের গোড়ালী কে’টে নিয়ে যায়। কা’মাল উদ্দিনের চি’ৎকারে আশপাশের লোকজন এসে তাকে আশংকাজনক অবস্থায় উ’দ্ধার করে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতা’লে প্রেরন করে। তার অবস্থাজনক বলে স্বজনরা জানিয়েছেন। কা’মাল উদ্দিনের পা কে’টে নেওয়ার সংবাদ পেয়ে এলাকায় দ্রæত ছুটে যান থা’নার অফিসার ইনচার্জ মো. তাজুল ইস’লাম পিপিএমসহ একদল পু’লিশ। রাতেই ছত্রপুর এলাকায় অবস্থান করে কানাইঘাট সার্কেলের এএসপি আব্দুল করিমের নেতৃত্বে এঘটনার সাথে জ’ড়িতদের আ’ট’ক ও কে’টে নিয়ে যাওয়া পায়ের অংশ উ’দ্ধার করতে এলাকায় পু’লিশ সাঁড়াশি অ’ভিযানে নামে।

শনিবার রাতে ঘটনার সাথে জ’ড়িত থাকার দায়ে মামুন আহম’দ এর স্ত্রী’ ফাতেহা বেগমকে গ্রে’প্তার করে পু’লিশ। এছাড়া জিজ্ঞাসাবাদের জন্য স্থানীয় ইউপি সদস্য আফতাব উদ্দিনকে থা’নায় নিয়ে আসে পু’লিশ। বর্তমানে তিনি পু’লিশ হেফাজতে রয়েছেন। গতকাল রবিবার বিকেলে ৫টার দিকে এএসপি আব্দুল করিম ও থা’নার ওসি তাজুল ইস’লামের উপস্থিতিতে কা’মাল উদ্দিনের উপর সস্ত্র হা’মলাকারী মামুন আহম’দের বসত বাড়ীর পুকুরের পূর্ব পাড়ে অবস্থিত একটি খড়ের ঘর থেকে পলিথিন প্যাচানো কা’মাল উদ্দিনের বিচ্ছিন্ন করা পায়ের অংশ উ’দ্ধার করতে সক্ষম হয় পু’লিশ।

এ ঘটনায় গুরুতর আ’হত কা’মাল উদ্দিনের পরিবারের পক্ষ থেকে থা’নায় মা’মলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে থা’নার ওসি তাজুল ইস’লাম পিপিএম জানিয়েছেন। তিনি বলেন গোষ্টিগত দ্বন্ধের জের ধরে এঘটনাটি ঘটেছে। কা’মাল উদ্দিনের কে’টে নেওয়া ডান পায়ের গোড়ালীর অংশ পু’লিশ উ’দ্ধার করেছে। যারা এ হা’মলার সাথে জ’ড়িত তাদের সবাইকে চিহ্নিত করা হয়েছে। ঘটনার সাথে জ’ড়িত ফাতেহা নামে এক মহিলাকে আ’ট’ক করা হয়েছে। অন্যান্যদের গ্রে’প্তারে বিভিন্ন এলাকায় অ’ভিযান চলছে। ইউপি সদস্য আফতাব উদ্দিনকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে বলেন তিনি জানান।

স্থানীয় এলাকাবাসী জানিয়েছেন দীর্ঘদিন থেকে ছত্রপুর গ্রামে আদিপত্য বিস্তার নিয়ে কয়েকটি গোষ্টির মধ্যে খু’ন খারাবী, মা’রামা’রি, দাঙ্গাহাঙ্গামা, পাল্টাপাল্টি মা’মলা, হা’মলা লেগেই রয়েছে। এনিয়ে সব সময় গ্রামের লোকজন আতংকের মধ্যে বসবাস করে থাকেন। সম্প্রতি সময় গোষ্টি প্রতার জের নিয়ে গ্রামে কয়েকটি অ’প্রীতিকর ঘটনা ঘটেছে। সর্বশেষ ২ বছর পূর্বে গোষ্টিগত দ্বন্ধের জের ও গ্রামের আদিপত্য বিস্তার নিয়ে নি’হত হন এবাদুর রহমান। তার হ’ত্যার বদলা নিতে অ’পর গোষ্টির কা’মাল উদ্দিনের উপর সস্ত্র হা’মলা চালিয়ে শরীরের বিভিন্ন অংশে গুরুতর জ’খম করে এবাদুর রহমানের গোষ্টির লোকজন তার ডান পায়ের নীচ অংশ এলোপাতাড়ী ভাবে রাস্তায় ফেলে কু’পিয়ে বিচ্ছিন্ন করে নিয়ে যায়।

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!