আন্তর্জাতিক

বিতর্কিত গর্ভপাত বিরোধী আইন ফের চালু হলো টেক্সা’সে

বাইডেন প্রশাসনের অনুরোধ উপেক্ষা করেই যু’ক্তরাষ্ট্রের টেক্সা’সে গর্ভপাত বিরোধী আইন অব্যাহত রাখার নির্দেশ দিয়েছে আ’দালত। শুক্রবার বার্তা সংস্থা এপির প্রতিবেদনে এ খবর জানা গেছে।

এর আগে তীব্র আ’ন্দোলনের মুখে টেক্সা’সে সম্প্রতি পাস হওয়া গর্ভপাত বিরোধী আইন সাময়িকভাবে বাতিল করেছিল দেশটির একটি আ’দালত। ওই আইনের মাধ্যমে গর্ভ ধারণের ছয় সপ্তাহ পর গর্ভপাত নিষিদ্ধ করা হয়েছিল।

গত ৫০ বছরের মধ্যে এই প্রথম দেশটিতে গর্ভপাত নিয়ে এ রকম নিষেধাজ্ঞা এসেছে বলে ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

আ’দালতের এই সিদ্ধান্তের কারণে বিতর্কিত এই আইনের বৈধতার বিষয়টি ফয়সালার জন্য সুপ্রিম কোর্ট পর্যন্ত গড়াতে পারে বলে এপির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

কয়েকদিন আগেই ওই আইনের বৈধতা চ্যালেঞ্জের মুখে পড়ায় আইনটি কার্যকর না করার অনুরোধ জানিয়েছিল বাইডেন প্রশাসন। যু’ক্তরাষ্ট্রের জে’লা জজ রবার্ট পিটম্যান সেই অনুরোধ অনুমোদন করেছিলেন। তবে ফের বিতর্কিত সেই আইন চালু হলো।

টেক্সা’স অঙ্গরাজ্যে পাস হওয়া ওই আইন গত মাসে কার্যকর হয়। একে যু’ক্তরাষ্ট্রের গর্ভপাতবিষয়ক সবচেয়ে কঠোর আইন বলা হচ্ছিল। এরপর থেকে ওই আইনের প্রতিবাদে রাস্তায় নেমে আসেন নারীরা।

১৯৭৩ সালে যু’ক্তরাষ্ট্রের সুপ্রিম কোর্টের ‘রো বনাম ওয়েড’ নামের ঐতিহাসিক রায়ে মা’র্কিন নারীদের গর্ভপাতে বৈধতা দেওয়া হয়েছিল। রো বনাম ওয়েড আইনের প্রসঙ্গ তুলে টেক্সা’সের গর্ভপাতবিরোধী নতুন আইনের সমালোচনা করেছিলেন আ’ন্দোলনকারীরা। নতুন আইনকে ১৯৭৩ সালের ‘রো বনাম ওয়েড’ আইনের লঙ্ঘন বলে দাবি করছিলেন তারা। এসবের পরিপ্রেক্ষিতেই এই নতুন সিদ্ধান্ত নিয়েছে আ’দালত।

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!