প্রবাস

ওয়াশিংটনে বাংলাদেশ দূতাবাসে চালু হল ই-পাসপোর্ট কার্যক্রম

যু’ক্তরাষ্ট্রে বসবাসরত প্রবাসীদের চাহিদা পূরণের জন্য ইলেকট্রনিক পাসপোর্ট (ই-পাসপোর্ট) সেবা চালু করলো ওয়াশিংটন ডিসিতে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস। রাষ্ট্রদূত এম শহীদুল ইস’লাম এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিব মোঃ মোকাব্বির হোসেন যৌথভাবে ১৭ সেপ্টেম্বর শুক্রবার ওয়াশিংটন দূতাবাসে এই সেবার উদ্বোধন করেন।

এসময় প্রদত্ত বক্তব্যে সচিব মোঃ মোকাব্বির হোসেন পূর্বে প্রচলিত হাতে লেখা এবং মেশিন রিডেবল পাসপোর্টের কিছু সীমাবদ্ধতা তুলে ধরে বলেন, নতুন প্রচলিত ই-পাসপোর্ট বিশ্বের সর্বাধুনিক প্রযু’ক্তির হওয়ায় এতে জালিয়াতির কোন সুযোগ নেই। যার ফলে বহির্বিশ্বে এই পাসপোর্টধারীদের ম’র্যাদা বৃদ্ধি পাবে। সচিব উল্লেখ করে, বিশ্বের অনেক উন্নত দেশ এখনও ই-পাসপোর্ট এর প্রচলন করতে পারেনি এবং দক্ষিণ এশিয়ার দেশসমূহের মধ্যে বাংলাদেশই প্রথম ই-পাসপোর্ট সেবা চালু করেছে। মোকাব্বির হোসেন আরো বলেন, বর্তমান সরকার ইতিমধ্যেই ঢাকা, সিলেট এবং চট্টগ্রাম বিমানবন্দরে ই-গেট স্থাপন করেছে যা যাত্রীদের ইমিগ্রেশন প্রক্রিয়াকে আরো সহ’জতর করবে।

রাষ্ট্রদূত এম শহীদুল ইস’লাম তাঁর বক্তব্যে ই-পাসপোর্ট সেবা সফলভাবে বাস্তবায়নের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী নেতৃত্বের একক কৃতিত্ব হিসেবে উল্লেখ করেন এবং এটি তাঁর “ডিজিটাল বাংলাদেশ” বিনির্মানের আরেকটি যুগান্তকারী মাইলফলক হিসেবে তুলে ধরেন। রাষ্ট্রদূত আশা প্রকাশ করেন যে, আমাদের স্বাধীনতার ৫০তম বার্ষিকী’ এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী’তে ই-পাসপোর্ট প্রবর্তন সারা’বিশ্বে বসবাসরত বাংলাদেশি প্রবাসীদের ভোগান্তি হ্রাস করবে। রাষ্ট্রদূত আরও বলেন, সরকারের প্রতিশ্রুতি অনুসারে, হাতের লেখা থেকে ইলেকট্রনিক পাসপোর্ট – এই পরিষেবার অগ্রগতিতে স্বল্প সময় লেগেছে। বাংলাদেশি অ’ভিবাসীদের সর্বোত্তম সেবা প্রদানের জন্য ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তর এবং বিদেশস্থ বাংলাদেশ মিশনসমূহের মধ্যে কার্যকর সমন্বয়ের ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন এম শহীদুল। এছাড়াও তিনি বিদেশে অবস্থিত সকল মিশনের মধ্যে বাংলাদেশ দূতাবাস, ওয়াশিংটন ডিসিতে প্রাথমিক পর্যায়ে ই-পাসপোর্ট সেবা চালু করার বিষয়টি বিবেচনা করার জন্য সূরক্ষা সেবা এবং ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরকে ধন্যবাদ জানান।

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!