প্রবাস

যু’ক্তরাস্ট্রের ম্যানহাটনে সুইমিংপুলে ডুবে সিলেটী যুবকের মৃ’ত্যু

ঈদের মাত্র একদিন আগে, গত ১৯ জুলাই, এক ম’র্মা’ন্তিক দুর্ঘ’টনায় প্রা’ণ হারিয়েছে ম্যানহাটানের স্থায়ী বাসিন্দা, প্রিয়মুখ, মেধাবী সিপিএ ও সদা হাস্যোজ্জ্বল যুবক সাজ্জাদ আলী শাহীদ ও বাবলী আহমেদ দম্পতি দ্বিতীয় সন্তান ফারহান সাইফ আলী। তার অকালমৃ’ত্যুর খবরে কমিউনিটির অনেকেরই ঈদের আনন্দ বেদনায় রূপ নিয়েছে।

জানা যায়, গত ১৯ জুলাই ফারহানসহ তার বন্ধুবান্ধবের সাতটি পরিবার মিলে ঈদ উদযাপনের জন্য কানেকটিকাট এলাকায় এয়ার বিএনবিতে যান। সন্ধ্যায় ফারহান অন্যদের সাথে সুইমিংপুলে নামেন। সাঁতার না জানায় ফারহান নয় ফুট গভীর সুইমিংপুলের পানিয়ে তলিয়ে গেলে দ্রুত জরুরি সেবায় কল দেয়া হয়। সংবাদ পেয়ে উ’দ্ধারকর্মীরা এসে উ’দ্ধার করে দ্রুত কানেকটিকাটের হার্ডফোর্ট সিংক ফ্রান্সিস হাসপাতা’লে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে মৃ’ত ঘোষণা করে।

মৌলভীবাজার জে’লার শ্রীমঙ্গলের একটি অ’ভিজাত মু’সলিম পরিবারের সন্তান সাজ্জাদ আলী শাহীদ প্রায় তিন দশক আগে স্ব^প্নের ভুবণ রচনায় নিউইয়র্কে আসেন। সবকিছুই চলছিলো নিয়ম মেনেই। এদেশে তার সন্তানরা সবাই যোগ্যতার প্রমাণ দিয়ে তাদের যার যার অবস্থান সংহতও করেছিল। করো’না মহামা’রীর কারণে দীর্ঘদিন গৃহবন্দী দশা থেকে সামান্য মুক্তির আশায় তারাসহ আরো ৭টি পরিবার সেদিন (১৯ জুলাই) গিয়েছিলেন এয়ার বিএনবি হোটেলে। কিন্তু হঠাৎ করেই যে তাদের স্বপ্ন্ দুঃস্বপ্নে পরিণত হবে, তা তারা ঘূর্ণাক্ষরেও ভাবতে পারেননি। দু’ছে’লে ও এক মে’য়ের মধ্যে ফারহান ছিলো দ্বিতীয় সন্তান। প্রচন্ড মেধাবী, তাই মাত্র ২৬ বছর বয়সেই সে সিপিএ হিসেবে বেশ পরিচিতি পেয়েছিল। মাত্র তিনমাস আগে আয়েশা আলমের সাথে তার বিয়ে হয়। এ ঘটনায় নববধূ বাকরুদ্ধ হয়ে গেছেন।

এ প্রতিবেদক যখন ফারহান আলীদের বাসায় যান, দেখতে পান ম’র্মন্তূদ এক দৃশ্য। ফারহানের অকাল মৃ’ত্যুতে মা-বাবা, ভাই-বোন ও স্ত্রী’সহ পরিবারের অন্যন্য সদস্যরা সবাই যেনো পাথর হয়ে গেছেন। তারা বার বার শোকে মূর্ছা যাচ্ছেন। কেউ তাদের কোনভাবেই সান্তনা দিতে পারছেন না।
আলাপকালে সাজ্জাদ আলী শাহীদ বলেন, ভাবতেই পারছি না, আমাদের ফারহান আর নেই। সে কোনদিন আর আমাদের কোলে ফিরে আসবে না। মা-বাবা বলে আর ডাকবে না। নববধূ আয়েশাকে আম’রা কি জবাব দেবো। কিভাবে সান্তনা দেবো।

সাজ্জাদ আলী শাহীদ বলেন, ফরহানই আমাদের দেখভাল করতো। তাকে নিয়ে আমাদের বহু স্বপ্ন ছিলো। কি করবো, আল্লাহ্ তার প্রিয় মানুষকে তাঁর কাছে তুলে নিয়ে গেছেন। এই ঈদে আল্লাহ্র নামে পশু কোরবানির বদলে আমা’র সন্তানই কোরবানি হয়ে গেলো।

জানা গেছে, ২১ জুলাই (বুধবার) বাদ জোহর কুইন্সের আবু হুরায়রা ম’সজিদে জানাজা শেষে ওয়াশিংটন মেমোরিয়াল গ্রেভইয়ার্ডে ফারহান আলী সাঈফকে দাফন করা হবে।

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!