১০টি পরিবারের বাসা ভাড়া ও বিদ্যুৎবিল মওকুফ করলেন সিলেটের লোকমান

ঢাকার পর এবার করো'নাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে সিলেটে নিজের ভাড়াটিয়াদের এক মাসের বাসা ভাড়া ও বিদ্যুৎ বিল মওকুফ করেছেন নগরের পশ্চিম চৌকিদেখির ইলা'শকান্দি এলাকার উদয়ন ২৯, ফিরোজা মঞ্জিলের আলতু মিয়ার ছে'লে লোকমান আহমেদ।

মঙ্গলবার লোকমান আহমেদ ফেসবুকে এক স্ট্যাটাসে লিখেন চলতি মা'র্চ মাসের বাসা ভাড়া ও বিদ্যুৎ বিল ভাড়াটিয়াদের দিতে হবে না।

এ ব্যাপারে জাগো নিউজকে লোকমান আহমেদ বলেন, আমাদের ১০ ইউনিটের তিনতলা বাসায় ছোট ১০টি পরিবার ভাড়া থাকেন। একমাসের বাসা ভাড়া ও বিদ্যুৎ বিলসহ মোট ৩২ হাজার টাকা আসে। দেশের সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে আমি এক মাস (মা'র্চ) মাসের ভাড়া ও বিদ্যুৎ বিল মওকুফ করে দিয়েছি।

লোকমান আহমেদ আরও বলেন, আমি ইচ্ছে করেই নোটিশটি ফেসবুকে দিয়েছি যেন মানুষ দেখে। অন্যরাও যেন আমা'র মতো উদ্যোগ নেন। কারণ আমি দেখছি, মানুষ শুধু অ'ভিযোগই করছে। কেউ নিজের কাজটা করার চেষ্টা করছে না। এটা একটা যু'দ্ধ, করো'নার বি'রুদ্ধে যু'দ্ধ। আমাদের সবদিক থেকে এ রোগের বি'রুদ্ধে ল'ড়তে হবে। সরকার একা কিছুই করতে পারবে না। আমা'র চেষ্টা হলো, মানুষের মধ্যে একটু ইতিবাচক ভাব নিয়ে আসা। ফেসবুকে নেতিকবাচক বিষয় দেখতে দেখতে আমি ক্লান্ত হয়ে গেছি।

ভাড়া মওকুফ এবং পরাম'র্শসহ নোটিশটি ফেসবুকে পোস্ট করার পর থেকেই প্রশংসায় ভাসছেন লোকমান আহমেদ।

মিজান ইম'রান নামের একজন মন্তব্য ঘরে লিখেছেন, বন্ধু লোকমানের আয়ের প্রধান উৎস বাড়ি ভাড়া। সেই বন্ধুটিও তার এক মাসের বাড়ি ভাড়া মওকুফ করেছেন। আলহাম'দুলিল্লাহ, এটা অনেক বড় সেক্রিভাইস। আল্লাহ তোমাকে এর উত্তম প্রতিদান দান করুন। এভাবে সকল সাম'র্থ্যবানরা এগিয়ে আসুন, জয় হোক মানবতার। আল্লাহ তায়ালা আমাদের সবাইকে এ কঠিন মুহূর্তে হেফাজত করুন। আমিন।

মো. সাহেদ নামের আরেকজন লিখেছেন, ছোট থেকে লোকমান মামাকে চিনি অনেক ভালো মানুষ। আজ দেশের করো'নাভাইরাসের আক্রান্ত হয়ে পুরো পৃথিবীসহ আমাদের বাংলাদেশ লকডাউন প্রায়। এ মহামা'রিতে তিনি নিজের বাসার ভাড়াটিয়া বাসা বাড়া ও কারেন্ট বিল মওকুফ করে দিয়ে উদার মনের সৈনিকের পরিচয় দিলেন। এভাবে পুরো দেশের মানুষ মানুষের পাশে দাঁড়ালে ইনশাল্লাহ আমাদের বাংলাদেশ আবার আগের মতো হাসিময় হয়ে উঠবে। লোকমান মামাকে ধন্যবাদ ও স্যালুট জানাই ও অনেক ভালোবাসা রইল মনের গভীর থেকে। এ কাজ থেকে অনুপ্রেরণা পাবে অনেক মানুষ আমি আশা রাখি