বিয়ে গো'পনের মা'মলায় কণ্ঠশিল্পী মিলার জামিন

টাইমস ডেস্কঃঃ আগের বিয়ে গো'পন করে নিজেকে কুমা'রী পরিচয়ে ফের বিয়ে করার অ'ভিযোগের মা'মলায় কণ্ঠশিল্পী তাশবিহা বিনতে শহীদ ওরফে মিলা ও তার বাবা শহিদুল ইস'লামের জামিন মঞ্জুর করেছেন আ'দালত।

আজ বুধবার তারা ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম (সিএমএম) আ'দালতে আত্মসম'র্পণ করে জামিন আবেদন করেন। পরে ঢাকার অ'তিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম মোহাম্মাদ আসাদুজ্জামান নূর জামিন মঞ্জুর করেন।

আ'সামি পক্ষে অ্যাডভোকেট তাপস চন্দ্র দাস জামিন আবেদনের শুনানি করেন। বাদী পক্ষে অ্যাডভোকেট মামুন আল কাইয়ুম জামিনের বিরোধিতা করেন।

এর আগে গত বছরের ৩ সেপ্টেম্বর একই আ'দালতে মিলার সাবেক স্বামী এসএম পারভেজ সানজারি এ মা'মলা করেন। ওইদিন একই আ'দালত মা'মলা'টি পল্লবী থা'নাকে ত'দন্তের নির্দেশ দেন। ত'দন্তের পর পল্লবী থা'নার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. জহিরুল ইস'লাম মিলার বিয়ে গো'পন করে প্রতারণার অ'ভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে ম'র্মে প্রতিবেদন দাখিল করেন। গত ২ ফেব্রুয়ারি আ'দালত ওই প্রতিবেদন আমলে নিয়ে মিলা ও তার বাবাকে আ'দালতে হাজির হতে সমন জারি করেন।

বাদী মা'মলায় অ'ভিযোগ করেন, ২০১৭ সালের ১২ মে মিলাকে তিনি বিয়ে করেন। বিয়ের পর বুঝতে পারেন মিলা একজন বদমেজাজী, অহংকারী, নে'শাগ্রহণকারী ও অ'নৈতিক চরিত্রের অধিকারী। যার কারণে তাদের দাম্পত্য কলহ শুরু হয়। সেই সুযোগে মিলা ২০১৭ সালের ৫ অক্টোবর যৌতুক আইনে বাদীর বি'রুদ্ধে একটি মিথ্যা মা'মলা করেন। ওই মা'মলায় বাদী গ্রে'প্তার হয়ে জামিন পাওয়ার পর ২০১৮ সালের ৩১ জানুয়ারি মিলাকে তালাক দেন। তালাক হওয়ার পর মিলা বাদীর বাসায় অনধিকার প্রবেশ করে একটি কম্পিউটার ও একটি মোবাইল নিয়ে যান। এ ছাড়া বাদীর মোটরসাইকেলে জিপিএস ট্র্যাকার স্থাপন করে বাদীকে উ'ত্ত্যক্ত ও অ'পমান করতে থাকেন। পরে বাদীকে হ'ত্যার জন্য ২০১৯ সালের ২ জুন এডিস নিক্ষেপ করেন। ওই ঘটনায় বাদী একটি মা'মলা করেছেন।

এরপর বাদী জানতে পারেন, তার সাবেক স্ত্রী' মিলা ২০০২ সালের ৩১ জুলাই লেফটেন্যান্ট কর্নেল (অবসরপ্রাপ্ত) একেএম নুরুল হুদার ছে'লে আবির আহম্মেদকে বিয়ে করেন। যা মিলা এবং তার বাবা শহিদুল ইস'লাম গো'পন করে মে'য়েকে কুমা'রী পরিচয়ে বাদীর সঙ্গে বিয়ে দিয়ে প্রতারণা করেন। এ ছাড়া প্রথম বিয়েতে মিলার জন্ম তারিখ ১৯৮৪ সালের ২৬ মা'র্চ উল্লেখ করলেও বাদীর সঙ্গে বিয়েতে প্রতারণা করে জন্মতারিখ ১৯৮৫ সালের ২৬ মা'র্চ উল্লেখ করেন তিনি।

জানা গেছে, বাদী পারভেজ সানজারিকে এসিড নিক্ষেপের মা'মলায় মিলা ও তার পিএস কিমকে অসামি করা হয়। ওই মা'মলায় কিম গ্রে'প্তার হয়ে জে'লে আছেন। আর পু'লিশ মা'মলা'টি ত'দন্ত করে মিলাকে অব্যাহতি দিয়ে শুধু কিমের বি'রুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করেছে। সেখানে বাদী নারাজি দাখিল করেছেন। আর বাদীর বি'রুদ্ধে মিলার দায়ের করা মা'মলা বর্তমান সাক্ষ্য গ্রহণের পর্যায়ে রয়েছে।

প্রসঙ্গত, একটি বেসরকারি এয়ারলাইন্সের পাইলট পারভেজ সানজারির সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে মিলার প্রে'মের স'ম্পর্কের পর ২০১৭ সালের ১২ মে তারা বিয়ে করেন।