বিয়ানীবাজার সংবাদ

বিয়ানীবাজারে সেতুর অভাবে দূর্ভোগ পোহাচ্ছে অর্ধলাখ মানুষ

নিজস্ব প্রতিবেদক- প্রবাসী অধ্যুষিত বিয়ানীবাজার উপজে'লার তিলপাড়া ইউনিয়নে সেতু না থাকায় বাশেঁর সাকোঁ দিয়ে নদী পারাপার হচ্ছে কয়েক হাজার মানুষ। বিবিরাই,বিলবাড়ি ও কালাইন গ্রাম সহ পার্শ্ববর্তী বড়লেখা ও গো'লাপগঞ্জ উপজে'লার সাধারণ মানুষ এই সাকো দিয়ে যাতায়াত করেন প্রতিনিয়ত। দীর্ঘ দিন থেকে কোনো সেতু না থাকায় দূর্ভোগ আর ভোগান্তিতে দিন পার করছেন অর্ধলক্ষ মানুষ।

সেতু না থাকায় উপজে'লার অন্যান্য ইউনিয়ন থেকে যোগাযোগ ব্যাবস্থায় অনেকটাই পিছিয়ে পড়েছে এ ইউনিয়নটি। বিশেষ করে গ্রামের নারীরা এই বাঁশের সাকো পার হতে বেশি ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন৷

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, উপজে'লার সীমান্ত ঘেঁষা বরুরদল নদীর ওই অংশে গ্রামবাসী নিজ উদ্যোগে যাতায়াতের জন্য বাঁশের সাঁকো তৈরি করেছেন। এ সাঁকো দিয়ে প্রতিদিন কয়েক শ মানুষ পারাপার হন। তবে নদীর পানি বেড়ে গেলে যাতায়াত করতে হয় নৌকা দিয়ে যার ফলে ভোগান্তি চরমে, বিশেষ করে মহিলা ও স্কুলগামী শিক্ষার্থীরা বিপাকে পড়েছেন। সাঁকো পারাপারে প্রায়ই ঘটে দুর্ঘ'টনা। তাছাড়া জে'লা শহর সিলেট যাওয়ার অন্যতম সহ'জ মাধ্যম হওয়ায় এই সড়ক দিয়ে সাধারণ মানুষের যাতায়াত বেশি। কিন্তু বর্ষা মৌসুমে নিমিষেই নদীসহ আশপাশ এলাকা তলিয়ে যাওয়ার কারণে যোগাযোগ ব্যবস্থা বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে। বর্তমান সরকার ক্ষমতার আসার পর বিয়ানীবাজার উপজে'লায় বিভিন্ন এলাকায় উন্নয়নের ছোঁয়া লাগলেও বিবিরাই, বিলবাড়ি ও কালাইন গ্রামসহ আশপাশ এলাকায় তেমন উন্নয়ন না হওয়ায় ক্ষুদ্ধ এলাকাবাসী।

স্থানীয় গ্রামবাসীর দাবি যোগাযোগ ব্যাবস্থায় পিছিয়ে পড়ছে এ ইউনিয়নটি। দ্রুত সেতু নির্মাণ না করলে শিক্ষা ও চিকিৎসা সহ নানা খাতে পিছিয়ে যাবে এই অঞ্চলটি।

এ বিষয়ে তিলপাড়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান বলেন, সেতু না থাকায় এ ইউনিয়নটি পিছিয়ে পড়েছে। বিয়ানীবাজার উপজে'লা পরিষদের মাসিক সভায় বিষয়টি উপস্থাপন করা হয়েছে সিদ্ধান্ত আসবে।

বিয়ানীবাজার প্রকৌশলী কর্মক'র্তা হাসানুজ্জামান বলেন, বাঁশের সাঁকোর বিষয়ে তিনি অবগত নয় তবে সরেজমিনে গিয়ে পরিদর্শন করে উর্ধতন মহলে জানিয়ে ব্যাবস্থা নেয়া হবে।

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!