সিলেট

অবশেষে সিলেটে খুললো আরও দুই পাথর কোয়ারি

বিয়ানীবাজার টাইমস ডেস্কঃ আইনি ল’ড়াই শেষে ছয় মাসের জন্য খুললো সিলেটের আরও দুইটি পাথর কোয়ারি। পাথর উত্তোলনে জারিকৃত স্থগিতাদের বিপক্ষে করা এক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে সোমবার (২৫ জানুয়ারি) বিচারপতি জেবিএম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত হাই’কোর্ট বেঞ্চ সিলেটের দুটি কোয়ারি খুলে দেয়ার আদেশ দেন।

আ’দালতে রিট’কারিদের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী হাবিব-উন-নবী। সিলেটের খুলে দেয়া কোয়ারি দুটো হচ্ছে- জাফলং ECA বহির্ভূত পিয়াইন এলাকা ও বিছনাকান্দি। এগুলো থেকে ভোলাগঞ্জের মতো আগামী ছয় মাস সনাতন পদ্ধতিতে পাথর উত্তোলন করা যাবে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী হাবিব-উন-নবী।

এর আগে ১৭ জানুয়ারি সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ উপজে’লার ভোলাগঞ্জ কোয়ারি থেকেও পাথর উত্তোলনের রায় দেন বিচারপতি জেবিএম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত হাই’কোর্ট বেঞ্চ।

২০১৬ সালের ১ সেপ্টেম্বর সিলেটের জাফলং, ভোলাগঞ্জ, শাহ আরেফিন টিলা, বিছানাকান্দি ও লো’ভাছড়ার পাথর কোয়ারি থেকে পাথর উত্তোলন নিষিদ্ধ করে খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়। এর আগে ২০১৪ সালে বাংলাদেশ পরিবেশ আ’ন্দোলনের (বাপা) দায়ের করা একটি রিটের পরিপ্রেক্ষিতে সিলেটের পাথর কোয়ারিগুলোতে সব ধরনের যন্ত্রের ব্যবহার নিষিদ্ধ করেন উচ্চ আ’দালত।

তবে এ নিষেধাজ্ঞার পর কোয়ারি থেকে সনাতন পদ্ধতিতে পাথর উত্তোলনের অনুমতি চেয়ে আ’ন্দোলন করে আসছেন পাথর ব্যবসায়ীরা। পরে আ’ন্দোলনে তাদের সঙ্গে যু’ক্ত হন পরিবহন ব্যবসায়ীরাও।

এই অবস্থায় চলতি মাসে দুই শুনানিতে ভোলাগঞ্জ, জাফলং ECA বহির্ভূত পিয়াইন এলাকা থেকে ও বিছনাকান্দি কোয়ারি থেকে পাথর উত্তোলনে স্থানীয় জে’লা প্রশাসনের দেওয়া স্থগিতাদেশের কার্যক্রম ৬ মাসের জন্য স্থগিত করলেন হাই’কোর্ট।

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!