বিয়ানীবাজার উপজেলা সম্পর্কে

বিয়ানীবাজার বাংলাদেশের সিলেট জেলার অন্তর্গত একটি উপজেলা।

অবস্থানঃ

এ উপজেলার পূর্বে জকিগঞ্জ উপজেলা ও ভারত, দক্ষিণে মৌলভীবাজার জেলার বড়লেখা উপজেলা, পশ্চিমে গোলাপগঞ্জ উপজেলা, উত্তরে কানাইঘাট উপজেলা। সিলেট জেলা সদর থেকে বিয়ানীবাজার উপজেলার মূল সড়ক পথে দূরত্ব প্রায় ৫১ কিলোমিটার তবে বাইপাস সড়কে ইহা ৩৬ কিঃমিঃ।

প্রশাসনিক এলাকাঃ

নির্বাচনী এলাকা – ২৩৪-সিলেট, পৌরসভা – ১ টি, ইউনিয়ন – ইউনিয়ন ৯ টি, মৌজা – ১৪৪ টি।

ইতিহাসঃ

বিয়ানীবাজারের পূর্ব নাম ছিল পঞ্চখন্ড। তৎকালীন সময়ে পঞ্চখন্ড গহীন জঙ্গল ও টিলা বেষ্টিত ভূমি ছিল। সিলেটের প্রথম রায় বাহাদুর হরেকৃষ্ণ রায় চৌধুরীর পুত্র কৃষ্ণ কিশোর পাল চৌধুরী এখানে একটি বাজার প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। কিন্তু হিংস্র জীবজন্তুদের ভয়ে লোকজন সকালবেলা (স্থানীয়ভাষায়ঃ বিহানে) বাজার শেষ করে নিজ নিজ আশ্রয়ে ফিরতেন। বিহানবেলা এই হাট বসতো তাই এর নাম হলো বিহানীবাজার যা কালের আবর্তণে বিয়ানীবাজার নাম ধারণ করে।

জনসংখ্যার উপাত্তঃ

জনসংখ্যা -২,৫৩,৩৭০জন (২০১১ এর আদম শুমারী অনুযায়ী) জনসংখ্যার ঘনত্ব – ৮৩৯।

কৃতী ব্যক্তিত্বঃ

  • প্রমথ নাথ দাস বিয়ানীবাজারের প্রজাপালক জমিদার,
  • গোবিন্দ চন্দ্র দেব (জিসি) (১৯০৭-১৯৭১), স্বাধীনতা পদক (মরণোত্তর) প্রাপ্ত, আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন মানবতাবাদি, দার্শনিক, শহীদ বুদ্ধিজীবি।
  • শহীদ মনু মিয়া, স্বাধিকার আন্দোলনের শহীদ।
  • কমরেড অজয় ভট্রাচার্ ঐতিহাসিক নানকার কৃষক বিদ্রোহের নেতা , ১৯৪৯ সালের ১৮ আগষ্ট তাঁর নেতৃত্বে সংঘটিত নানকার কৃষক বিদ্রোহের ফলে জমিদারী বৃটিশ আমলের ঘৃণ্য নানকার প্রথা রদ ও জমিদারী প্রথার অবসান হয়েছিল।
  • এম এ আজিজ মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক
  • আকাদ্দস সিরাজুল ইসলাম মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, ও কথা সাহিত্যক।
  • নুরুল ইসলাম নাহিদ, মন্ত্রী, শিক্ষা মন্ত্রনালয়,
  • ডঃ তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধূরী (বীর বিক্রম), মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা
  • আব্দুর রাজ্জাক, ব্যারিস্টার, বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট
  • সেলিম উদ্দিন – জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় হুইপ, সিলেট-৫ (জকিগঞ্জ-কানাইঘাট) আসনের সংসদ সদস্য