হবিগঞ্জে প্রথম করো'না জয় করলেন এক নার্স

নিউজ ডেস্ক- হবিগঞ্জ জে'লার নবীগঞ্জ উপজে'লা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সিনিয়র স্টাফ নার্স সিলেটের শহীদ শামসুদ্দিন হাসপাতাল থেকে ১০ দিন চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়েছেন। বুধবার (২০ মে) দুপুরে হাসপাতা'লের চিকিৎসক দল তাকে করো'নামুক্ত ঘোষণা দিয়ে বাড়িতে ফিরে যাওয়ার ছাড়পত্র দেন।

নবীগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের করো'না জয়ী সিনিয়র স্টাফ নার্স হিসাবে আরতি রানী বালা দীর্ঘদিন ধরে কর্ম'রত আছেন। গত ৩ মে করো'না আ'ক্রান্ত এক নার্সের সংস্প'র্শে আসায় তিনি নবীগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নমুনা দেন। পরে ১০ মে সন্ধ্যার দিকে তার রিপোর্ট পজেটিভ আসার পর ওইদিন রাতেই তাকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নার্স কোয়ার্টারে আইসোলেশনে রেখে তার চিকিৎসা করানো হচ্ছিল। দুইদিন পর ১২ মে দুপুরে প্রচন্ড শ্বা'সক'ষ্ট শুরু হলে সিলেট বিভাগের করো'না চিকিৎসাকেন্দ্র শহীদ শামসুদ্দিন হাসপাতা'লে প্রেরণ করা হয়। চিকিৎসা শেষে আজ (বুধবার) তিনি পুরো সুস্থ হন। এছাড়া তার পরিবারের ৬ সদস্যের নমুনা সংগ্রহ করে সিলেট আইইসিডিআরে পাঠানো হলে তাদের রিপোর্ট নেগেটিভ আসে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে উপজে'লা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. চ'ম্পক কি'শোর সাহা জানান, নবীগঞ্জে করো'নাভাই'রাসে আ'ক্রান্ত প্রথম রোগী নার্স আরতি বালার নমুনা পরপর দুইবার সংগ্রহ করে সিলেট আইইসিডিআর কেন্দ্রে পাঠানো হলে তার রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। ফলে তাকে ছাড়পত্র দিয়ে বাড়ি পাঠানো হয়েছে।

এদিকে নবীগঞ্জে আরো এক পরিবার পরিকল্পনা কর্মী আ'ক্রান্ত হয়েছে। এনিয়ে ব্যাংকার ও ৫ জন স্বাস্থ্যকর্মীসহ উপজে'লায় ১৯ জন করো'নায় আ'ক্রান্ত হয়েছেন।

নবীগঞ্জ উপজে'লা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মক'র্তা ডা.আব্দুস সামাদ বলেন, নবীগঞ্জ উপজে'লায় এখন পর্যন্ত ৪৭৫ জন করো'না উপসর্গ থাকা রোগীর নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। এদের মধ্যে ১৯ জনের করো'না পজেটিভ পাওয়া গেছে। এর মধ্যে এই প্রথম নবীগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সিনিয়র ষ্টার্ফ নার্স আরতি বালা নাথ সুস্থ হওয়ায় হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র পেয়েছেন। আগামী কয়েকদিনের মধ্যে আরো কয়েকজন রোগীকে সুস্থতার ছাড়পত্র দেওয়া হবে।