তাহিরপুরে জ্বর-সর্দিতে ১ জনের মৃ'ত্যু, কোয়ারেন্টাইনে বাবা, মা’সহ পরিবারের ৬ জন

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃ সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজে'লায় সর্দি, জ্বর ও কাশিতে আ'ক্রান্ত হয়ে জহিরুল নামে এক গার্মেন্টস কর্মী মা'রা গেছেন। তাকে তার নিজ গ্রামের গোরস্থানে বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টায় দাফন করেছে স্বজনরা। এ ঘটনায় বাবা, মাসহ ৬ জনকে হোম কোয়ারান্টাইনে রাখা হয়েছে। জহিরুল (২২) উপজে'লার বালিজুড়ি ইউনিয়নের মাহতাবপুর গ্রামের কাফিল উদ্দিনের ছে'লে।

জহিরুলের পরিবার ও স্থানীয় এলাকাবাসী জানান, জহিরুল দীর্ঘদিন ধরে ঢাকার গাজীপুর এলাকায় একটি গার্মেন্টন্সে কর্ম'রত ছিল। গত সপ্তাহ খানেক ধরে জ্বর, সর্দি ও কাশিতে আ'ক্রান্ত হলে সেখানে একটি হাসপাতা'লে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত বুধবার (১ এপ্রিল) সন্ধ্যায় তার মৃ'ত্যু হয়। পরে তার ম'রদেহ গাজীপুর থেকে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মাহতাবপুর গ্রামে নিয়ে আসে। এর পর পরেই তার লা'শ দাফন করে স্বজনরা।

খবর পেয়ে তাহিরপুর থা'না পু'লিশ ও উপজে'লা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসকগণ মাহতাবপুর গ্রামে গিয়ে জহিরুলকে যারা গাজীপুর থেকে বাড়ি নিয়ে এসেছে এবং লা'শ ধোয়ানোর কাজে যারা ছিল তাদের ৬ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশনা দিয়েছেন।

তারা হলেন, জহিরুলের পিতা কফিল উদ্দিন (৫০), মা তাসলিমা (৩৫), স্বজন আব্দুল মনাফ (৭৫), আবুল বাদশা (৩৫), গাজীপুর থেকে লা'শ নিয়ে আসা কুলসুমা (২৬) ও মালিক উস্তার (১৬) ।

তাহিরপুর উপজে'লা নির্বাহী অফিসার বিজেন ব্যানার্জী বলেন, সংবাদটি জানার পরই উপজে'লা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ইউএইচএফপিও ও তাহিরপুর থা'না অফিসার ইনচার্জকে অবহিত করেন।

তাহিরপুর উপজে'লা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ইউএইচএফপিও ডাঃ ইকবাল হোসেন বলেন, ঢাকায় যোগাযোগ করেছেন। তারা নির্দেশনা দিয়েছেন লা'শের সাথে সংশ্লিষ্ট সবাইকে আগামী দুই সপ্তাহ হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখতে হবে।