জুড়ীতে গভীর রাতে ছা'ত্রীর বাড়ীতে শিক্ষক আ'ট'ক: মুচলেকায় মুক্তি

টাইমস ডেস্কঃ জুড়ী উপজে'লার শিলুয়া উচ্চ বিদ্যালয় এন্ড কলেজের সহকারী প্রধান শিক্ষক ছাদেকুর রহমান সাদেক বুধবার গভীর রাতে এক ছা'ত্রীর বাড়িতে এলাকাবাসীর হাতে আ'ট'ক হন। ছা'ত্রীর মায়ের সাথে অ'নৈতিকতার অ'ভিযোগে এলাকাবাসী তাকে আ'ট'ক করে থা'নায় সোপর্দ করেন। অবশেষে বৃহস্পতিবার দুপুরে মুচলেকা দিয়ে তিনি থা'না থেকে ছাড়া পান।

এলাকাবাসী ও থা'না পু'লিশ সুত্রে জানা গেছে, শিলুয়া উচ্চ বিদ্যালয় এন্ড কলেজের সহকারী প্রধান শিক্ষক ছাদেকুর রহমান সাদেক জুড়ী আধুনিক হাসপাতা'লের তৃতীয় তলায় বসবাস করেন। জাঙ্গীরাই গ্রামের দুবাই প্রবাসী আবুল হোসেনের মে'য়ে জুড়ী মুক্তাদীর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ছা'ত্রী। সাদেকুর গত ৩ মাস ধরে ওই ছা'ত্রীকে দিনের বেলা বাড়িতে গিয়ে প্রাইভেট পড়ান। বুধবার দিনের বেলা যথারীতি প্রাইভেট পড়িয়ে ফিরে আসেন। রাত ১২টার পর ওই ছা'ত্রীর বাড়িতে গেলে স্থানীয় লোকজন তাকে আ'ট'ক করে রাতেই থা'নায় সোপর্দ করেন। স্থানীয় সুত্র জানায়, ছা'ত্রীর মা প্রবাসীর স্ত্রী'র সাথে শিক্ষকের অ'নৈতিক স'ম্পর্ক গড়ে উঠে। প্রায়ই গভীর রাতে তিনি প্রবাসীর বাড়িতে যাতায়াত করেন। বুধবার ওৎ পেতে প্রতিবেশীরা তাকে আ'ট'ক করে পু'লিশে সোপর্দ করেন।

থা'নার ওসি মো. জাহাঙ্গীর হোসেন সরদার জানান, এলাকাবাসী রাতে প্রবাসীর বাড়ি থেকে শিলুয়া উচ্চ বিদ্যালয় এন্ড কলেজের সহকারী প্রধান শিক্ষক ছাদেকুর রহমান সাদেককে থা'নায় সোপর্দ করেন। প্রবাসীর মে'য়েকে তিনি প্রাইভেট পড়াতেন। রাতে যাওয়ায় অনেকের স'ন্দেহ হয়। তিনি (আ'ট'ক শিক্ষক) বলেছেন ছা'ত্রী কিছু প্রয়োজনীয় ছবি প্রিন্ট করে দেয়ার কথা বলায় তা নিয়ে গিয়েছিলেন। লোকজন জানতেন না তাই স'ন্দেহ করে। তাদের মধ্যে ভুলবুঝাবুঝি হয়েছিল। ছা'ত্রী কিংবা ছা'ত্রীর মায়ের কোন অ'ভিযোগ না থাকায় মুচলেকা আদায় করে ওই শিক্ষককে ছেড়ে দিয়েছেন।

এব্যাপারে জানতে অ'ভিযু'ক্ত সহকারী প্রধান শিক্ষক ছাদেকুর রহমান সাদেকের মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তা বন্ধ থাকায় তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।