বিশ্বনাথে র'ক্তক্ষয়ী সং'ঘর্ষে দুই পক্ষের আ'হত ৩৫

নিউজ ডেস্কঃ সিলেটের বিশ্বনাথে অটোরিকশা (সিএনজি) গাড়ি স্ট্যান্ড দখল নিয়ে দুই পক্ষের সং'ঘর্ষে অনন্ত ৩৫জন আ'হত হয়েছেন। আজ মঙ্গলবার দুপুরে উপজে'লার সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কের মাহতাবপুর মাছের আড়তের সামনে এঘটনা ঘটে। এসময় কয়েকটি অটোরিকশা (সিএনজি) গাড়ি ভাংচুর করা হয়।

আ'হতরা হলেন-সবুজ মিয়ার পক্ষে সবুজ মিয়া (৩৫), জাহাঙ্গীর আলম (২২), আনসার আলী (৪০), সুজন মিয়া (২০), ছাদিক মিয়া (২০), ছালেক মিয়া (১৮), জুয়েল আহম'দ (২০), ফরহাদ মিয়া (১৮), মনসুর আলী (২০), এনায়েত হোসেন (২৫), কবির আহম'দ (২৭), আলাধীন (১৭), ইম'রান আহম'দ (২২), গোলাম আলী (৩০), আবদুস সালাম (২৮), নজির আহম'দ (২৪), আবদুল হাফিজ (১৯), আনোয়ার (৩৫), আমিনুর (৩২), মোহাম্ম'দ আলী (৩২)। আব্বাস উদ্দিন পক্ষের আ'হতরা হলেন-চ'মক আলী (২৫), ফারুক মিয়া (২২), রুবেল আহম'দ (২৫), সাজ্জাদ মিয়া (২৪)। বাকি আ'হতদের নাম জানাযায়নি। এরই মধ্যে গুরুতর অনন্ত ১০জন সিলেট ওসমানী মেডিকেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

খবর পেয়ে থা'না পু'লিশ ও এলাকাবাসী ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন। সং'ঘর্ষকালে সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কে প্রায় ঘন্টাখানিক সকল ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ ছিল। পরে পরিস্থিতি শান্ত হলে যানবাহন চলাচল শুরু করে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বিশ্বনাথ উপজে'লার লামাকাজি এলাকায় মাহতাবপুর মৎস্য আড়তের সামনে অটোরিকশা স্ট্যান্ড দখল নিয়ে দুটি গ্রুপের মাঝে দীর্ঘদিন যাবৎ বিরোধ চলে আসছে। মঙ্গলবার সকালে সবুজ মিয়ার পক্ষের লোকজন সিএনজি স্ট্যান্ড দখল নিতে সাইনবোর্ড নির্মাণ করে। এতে অ'পর পক্ষ আব্বাস উদ্দিন পক্ষের লোকজন বাঁ'ধা দেয়। এনিয়ে প্রথমে কথাকা'টাটি হয়। এরই এক পর্যায়ে উভ'য় পক্ষের লোকজন লা'টি-সোটা নিয়ে সং'ঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। এক পক্ষ অ'পর পক্ষকে লক্ষ করে ইটপাট'কেল নিক্ষোপ করে। এতে সিলেট-সুনামগঞ্জ যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। প্রায় আধা ঘন্টাব্যাপি এ সং'ঘর্ষে উভ'য় পক্ষের অনন্ত ৩৫জন আ'হত হন।

এব্যাপারে লামাকাজি ইউপি চেয়ারম্যান কবির হোসেন ধলা মিয়া বলেন, বিষয়টি এলাকার গণ্যমান ব্যক্তিবর্গ নিয়ে আপোষ-মিমাংশার উদ্যোগ গ্রহন করা হয়েছে। এতে উভ'য় পক্ষ সম্মতি প্রকাশ করেছে।

বিশ্বনাথ থা'নার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) শামীম মু'সা জানান, অটোরিকশা (সিএনজি) গাড়ির স্ট্যান্ড দখল নিয়ে সং'ঘর্ষের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে শতাধিক পু'লিশ ঘটনাস্থলে প্রেরণ করা হয়। তবে বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।