কর্মচারীকে মা'রধরঃ সুনামগঞ্জ পৌরসভার প্যানেল মেয়র হোসেন আহমেদ রাসেল কারাগারে

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি: সুনামগঞ্জ জে'লা প্রশাসন কার্যালয়ের কর্মচারীকে মা'রধরের অ'ভিযোগে দায়ের করা মা'মলায় পৌরসভার প্যানেল মেয়র হোসেন আহমেদ রাসেলকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আ'দালত।

সোমবার (১৩ জানুয়ারি) দুপুরে সুনামগঞ্জ চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আ'দালতের সিনিয়র জুডিসিয়াল বেলাল উদ্দিনের আ'দালতে হাজির হলে তাকে জে'লা কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেওয়া হয়।

মা'মলা সূত্রে জানা যায়,জে'লা প্রশাসনের কার্যালয়ের কর্মচারী জাকারিয়া তার ছোটবোনের বিয়ের কাঠের আসবাবপত্র পৌর শহরের ষোলঘর এলাকার একটি ফার্নিচারের দোকান থেকে ক্রয় করে ট্রাকে তোলার সময় রাস্তায় সামান্য যানজটের সৃষ্টি হওয়ায় সুনামগঞ্জ পৌরসভার ১নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হোসেন আহম'দ রাসেল ট্রাকচালককে গালিগালাজ করেন এবং একপর্যায়ে মা'রধর শুরু করেন। তখন জাকারিয়া এগিয়ে গেলে তাকেও মা'রধর শুরু করেন কাউন্সিলর হোসেন আহম'দ রাসেল।

কাউন্সিলর তখন মাতাল অবস্থায় ছিলেন বলেও মা'মলায় উল্লেখ করা হয়। এসময় জাকারিয়া নিজেকে ডিসি অফিসের কর্মচারী হিসেবে পরিচয়পত্র দেখিয়ে মা'রধর না করতে অনুরোধ করলেও রাসেল তাকে মা'রধর করেন এবং পরে তাকে পৌরসভায় নিয়ে আবার মা'রধর করেন। এঘটনায় প্যানেল মেয়র হোসেন আহমেদ রাসেল হাইকোর্ট থেকে জামিন নিয়েছিলেন।

জামিনের মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ার পর তিনি হাজিরা না দেওয়ায় আ'দালত তার বি'রুদ্ধে গ্রে'ফতারি পারোয়ানা জারি করে এবং গ্রে'ফতারি পারোয়ানা জারির পর সুনামগঞ্জ চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আ'দালতে হাজির হলে আ'দালত তাকে সুনামগঞ্জ জে'লা কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন আ'দালত।

কোর্ট পরিদর্শক আশিক জানান,হাইকোর্ট থেকে নেওয়া জামিনের মেয়াদ শেষ হওয়ার পর আ'দালতে উপস্থিত না হওয়ায় তার বি'রুদ্ধে গ্রে'ফতারি পারোয়ানা জারি হলে তিনি আ'দালতে উপস্থিত হন। এসময় আ'দালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।