হবিগঞ্জের সাতছড়ির গণধ'র্ষণের ঘটনায় গ্রে'প্তার ১

নিউজ ডেস্ক- হবিগঞ্জের চুনারুঘাট সাতছড়ি জাতীয় উদ্যানে কলেজ ছা'ত্রী গণর্ধষণের ঘটনায় এক আ'সামিকে গ্রে'প্তার করেছে পু'লিশ। বৃহস্পতিবার সকালে হবিগঞ্জ শহর থেকে প্রধান অ'ভিযুক্ত শামিম মাহমুদ মামুনকে(২২) গ্রে'প্তার করা হয়।

সূত্র জানায়, বুধবার হবিগঞ্জের নারী ও শি'শু নি'র্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে একটি গণধ'র্ষণের অ'ভিযোগ দাখিল করেছেন এক কলেজছা'ত্রী (১৯)। তাতে আ'সামি করা হয়েছে পাঁচজনকে। তারা হলেন-শামিম মাহমুদ মামুন,ফজলুর রহমান, আলী হোসেন, জুনেদ ও লতিফ। শুনানি শেষে ট্রাইব্যুনালের বিচারক জিয়া উদ্দিন মাহমুদ অ'ভিযোগটি এফআইআর হিসেবে রুজু করে চুনারুঘাট থা'নার ওসিকে ত'দন্ত করার নির্দেশ দেন।

অ'ভিযোগে কলেজছা'ত্রী জানান,সদর উপজে'লার বাতাসর গ্রামের শামিম মাহমুদ মামুনের সাথে প্রে'মের স'ম্পর্ক গড়ে উঠেছিল। সে সুবাদে মামুন বিভিন্ন স্থানে ঘুরাতে নিয়ে যাওয়ার পাশাপাশি শারীরিক স'ম্পর্ক স্থাপন করে। মঙ্গলবার দুপুরে সাতছড়ি জাতীয় উদ্যানে ডেকে নিয়ে মামুন নিজে ধ'র্ষণ করার পাশাপাশি বন্ধুদের হাতে তুলে দেন ছা'ত্রীকে। সেখানে পালাক্রমে ধ'র্ষণ করেন ফজলুর রহমান,আলী হোসেন,জুনেদ ও লতিফ। ঘটনার পর স্থানীয়রা তরুণীকে উ'দ্ধারের পর হবিগঞ্জ হাসপাতালে ভর্তি করেন।

আলোচিত এ গণধ'র্ষণ ঘটনার বিষয়ে মা'মলা হলে বৃহস্পতিবার সকালে অ'ভিযান শুরু করেন চুনারুঘাটের ওসি শেখ নাজমুল হক। হবিগঞ্জ শহর থেকে গ্রে'প্তার করা হয় প্রধান আ'সামি শামিম মাহমুদ মামুনকে। তাকে ঘটনার ব্যাপারে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু হয়েছে।