আমি স্বপদে বহাল আছি, গুজব ছড়াবেন না: লে. কর্ণেল ফেরদৌস

নিউজ ডেস্কঃ এবার রাজশাহী বিজিবির অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্ণেল ফেরদৌস জিয়াউদ্দীন মাহমুদকে নিয়ে অ'পপ্রচারে নেমেছে অনলাইন সক্রিয়কারীরা।
তিনি স্বপদে স্বাভাবিকভাবেই চাকরিতে বহাল রয়েছেন। কিন্তু, ফেসবুকে প্রচার করা হচ্ছে তাকে বরখাস্ত করা হয়েছে। কোর্ট মা'র্শল ল’তে তাকে শা'স্তি দেয়া হয়েছে। বিচারের মুখোমুখি করা হচ্ছে।

এসব বিষয়ে, রাজশাহী ব্যাটেলিটন বিজিবির-১ অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্ণেল ফেরদৌস জিয়া উদ্দীন মাহমুদ বলেন, ‘আমি স্বপদে সসম্মানে চাকরিতে বহাল আছি। আমাকে বরখাস্ত করা হয়নি। আমাকে কোন বিচারের মুখোমুখিও হতে হয়নি। আপনারা দয়া করে এসব অ'পপ্রচার করবেন না। এসব অ'পপ্রচার কেউ বিশ্বা'স করে গুজব ছড়াবেন না।’

গত ১৭ই অক্টোবর, ভারতের সীমান্তরেখা অ'তিক্রম করে কয়েকজন জে'লে বাংলাদেশের সীমানায় প্রবেশ করে। তারা চারঘাটের ভেতরে পদ্মানদীতে প্রবেশ করে ইলিশ মাছ শিকার করতে থাকে। ওই সময় বাংলাদেশের আইন অনুযায়ী নদীতে মা ইলিশ রক্ষায় ইলিশ শিকারের বি'রুদ্ধে ভ্রাম্যমান আ'দালদের অ'ভিযান চলছিলো। মা ইলিশ শিকারের সময় ভ্রাম্যমান আ'দালত চার জে'লেকে আ'ট'ক করে। এ সময়, ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ সদস্যরা এসে তিন জে'লেকে ছিনিয়ে নেয়। অ'পর জে'লে প্রণব মণ্ডলকে ছিনিয়ে নেয়ার জন্য বিএসএফ সদস্যরা বিজিবিকে লক্ষ্য করে গু'লি চালায়। এ সময়, বিজিবি পাল্টা গু'লি চালালে বিএসএফ এর সদস্য বিজয় ভান সিং নি'হত এবং আ'হত হন আরেক বিএসএফ সদস্য রাজবীর সিং।

এরপর, রাজশাহী বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্ণেল ফেরদৌস জিয়াউদ্দীন মাহমুদ সংবাদ সম্মেলন করে প্রকৃত ঘটনা তুলে ধরলে বিভিন্ন মিডিয়ায় তার বক্তব্যের ভিডিও প্রচার এবং ভারাইল হতে থাকে। এরপর, অনেকেই তাকে ‘জাতীয় বীর’ হিসেবে উল্লেখ করতে থাকেন। এর ফলে, অনলাইনে অ'ত্যান্ত বেশি পরিচিতি পান বিজিবি অধিনায়ক ফেরদৌস জিয়া উদ্দীন মাহমুদ। সেই ভিডিওতে তার একটি বক্তব্য ছিলো ‘আম'রা ডেকে নিয়ে এসে কাছে আনার পর গু'লি করে তাদের মে'রে ফেলবো-একটা বাহিনীর সঙ্গে স'ম্পর্ক অবনতি করবো, এমনটা হতে পারেনা। আম'রা তাদের বলেছি, জাতিগতভাবে আম'রা ম'দ্যপ নই এবং আম'রা মানসিকভাবেও সবাই সুস্থ। একটা বাহিনীর সঙ্গে স'ম্পর্ক অবনত করার মত কোন ঘটনাও ঘটেনি।’ তার এই বক্তব্যটি দেশের অনলাইন সক্রিয়রা ব্যাপকভাবে ভাইরাল করে।

ফেসবুকের সেই জাতীয় বীরকে নিয়েই এবার নতুন করে ফেসবুক ব্যবহারকারীরা অ'পপ্রচারে নেমেছেন। সেই বিজিবি অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্ণেল জিয়াউদ্দীন মাহমুদকে বরখাস্ত করা হয়েছে বলে দেশের তরুণ প্রজন্মের মানুষের ফেসবুক জুড়ে প্রচার হচ্ছে। এমন অ'পপ্রচারে অ'ত্যন্ত বির'ক্ত এবং ক'ষ্ট পাচ্ছেন তিনি।