১৬ বছর পর বিয়ানীবাজার উপজে'লা আওয়ামীলীগের সম্মেলন, সমঝোতা নাকি ভোট?

বিয়ানীবাজার টাইমস প্রতিবেদনঃ ১৪ নভেম্বর বিয়ানীবাজার উপজে'লা আওয়ামীলীগের সম্মেলন। দীর্ঘ ১৬ বছরের পর সম্মেলন হচ্ছে তাই নেতাকর্মীদের মধ্যে বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনা লক্ষ্য করা গেছে। তবে সম্মেলনে যে কমিটি আসবে তা সমঝোতার নাকি কাউন্সিলরদের ভোটে এ নিয়ে রয়েছে ধোঁয়াশা। সমঝোতা হবেনা ধরে নিয়েই সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক প্রার্থীরা কাউন্সিলরদের কাছে ধর্না দিচ্ছেন নিয়মিত।

শুধু মাঠের ল'ড়াইয়ে ক্ষ্যান্ত হচ্ছেন না নেতাকর্মীরা, সোশ্যাল মিডিয়ায় কাদা ছোড়াছোড়ি পর্যন্ত গড়াচ্ছে প্রচারনা। তবে সব প্রচারনা ছাপিয়ে কাউন্সিলরদের কাছে ব্যাক্তিগত স'ম্পর্ক ও আঞ্চলিকতা প্রাধান্য পাচ্ছে ।

বিয়ানীবাজার উপজে'লা আওয়ামীলীগের সভাপতি পদে এ পর্যন্ত প্রকাশ্যে প্রার্থীতা ঘোষনা করেছেন বর্তমান সভাপতি আব্দুল হাসিব মনিয়া, সাধারন সম্পাদক আতাউর রহমান খান, সাংগঠনিক সম্পাদক নজমুল হোসেন, চারখাই ইউপি চেয়ারম্যান মাহম'দ আলী।  সাধারন সম্পাদক পদে উপজে'লা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাকির হোসেন, প্রচার সম্পাদক হারুনুর রশীদ দিপু, দফতর সম্পাদক দেওয়ান মাকসুদুল আউয়াল, সাবেক স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি বর্তমান উপজে'লা চেয়ারম্যান আবুল কাশেম পল্লব ও ছাত্রলীগের সাবেক আহ্বায়ক বর্তমান উপজে'লা ভাইস-চেয়ারম্যান জামাল হোসেন।

সরেজমিনে উপজে'লার বিভিন্ন ইউনিয়ন ঘুরে দেখা গেছে, সম্মেলন উপলক্ষ্যে আওয়ামীলীগ ও তার অঙ্গ সংঘটনের নেতাকর্মীদের মধ্যে বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনা রয়েছে। নেতাকর্মীরা পছন্দের নেতাকে নের্তৃত্বে আনতে ধর্না দিচ্ছে বিভিন্ন কাউন্সিলরদের কাছে। তবে কাউন্সিলরদের কাছে সব ছাপিয়ে বিগত দিনে যেসব নেতার সাথে ব্যাক্তিগত স'ম্পর্ক এবং একই এলাকার হওয়ার বিষয়টি প্রাধান্য পাবে বলে দেখা গেছে।

তৃণমুলের বিভিন্ন ইউনিয়নের কাউন্সিলরদের সাথে কথা বলে জানা যায়, অনেকের প্রার্থীতা থাকলেও সভাপতি পদে মূল ল'ড়াই হবে বর্তমান সভাপতি আব্দুল হাসিব মনিয়া ও বর্তমান সাধারন সম্পাদক আতাউর রহমানের মধ্যে। তবে আঞ্চলিকতা এবং সাম্প্রদায়িকতা নির্বাচনে কাজ করলে যেকোনো সময় সভাপতি পদপ্রার্থী চারখাই ইউপি চেয়ারম্যান মাহম'দ আলী চলে আসবেন মূল আলোচনায়। অন্য প্রার্থী নজমুল হোসেন নির্বাচনের দৌড়ে নিজেকে এগিয়ে নিতে দিনরাত কাউন্সিলরদের কাছে যাচ্ছেন।

সভাপতি পদের মতো সাধারন সম্পাদক পদে মূল ল'ড়াই হবে বর্তমান সাংগঠনিক সম্পাদক জাকির হোসেন এবং বর্তমান দফতর সম্পাদক দেওয়ান মাকসুদুল আউয়ালের মধ্যে। তবে কসবা ফ্যাক্টের কারনে শেষমেষ আলোচনায় চলে আসতে পারেন প্রচার সম্পাদক হারুনুর রশীদ দিপু। বর্তমান চেয়ারম্যান আবুল কাশেম পল্লব সবাইকে চ'মকে চালকের আসনে বসলেও আশ্চর্যের কিছু থাকবে না। উপজে'লা ভাইস-চেয়ারম্যান জামাল হোসেনও কাউন্সিলরদের কাছে ছুটছেন বিরামহীন।

সাধারন সম্পাদক পদপ্রার্থী বর্তমান সাংগঠনিক সম্পাদক জাকির হোসেন বিয়ানীবাজার টাইমসের সাথে আলাপকালে জানান, সমঝোতার মাধ্যমে জে'লা নের্তৃবৃন্দ চাইবেন একটি কমিটি দেয়ার, সমঝোতা না হলে কাউন্সিলরদের ভোটে নের্তৃত্ব নির্বাচিত হবে।

আরেক প্রার্থী সাবেক শিক্ষামন্ত্রীর স্থানীয় বিশেষ প্রতিনিধি দেওয়ান মাকসুদুল আউয়াল টাইমসকে বলেন, স্থানীয় কাউন্সিলররা সম্মেলনকে ঘিরে ঐতিহ্যবাহি এ দলের নের্তৃত্ব নির্বাচন করবেন, এতে তাদের মতামত যেদিকে যাবে সেটা আম'রা সকলেই মা'থা পেতে নেবো।

এদিকে তার বি'রুদ্ধে উঠা অ'ভিযোগের ব্যাপারে তিনি বলেন, যেকোনো নির্বাচনে প্রার্থীতা প্রকাশ করলে বিগত ২০১৭ সালের পর থেকে একদল সুযোগসন্ধানী দুস্কৃতিকারিরা এমন অ'ভিযোগ প্রচার করাতে ব্যস্ত হয়ে পড়েন যাতে তারা সুবিধা নিতে পারেন।

সভাপতি পদপ্রার্থী আতাউর রহমান খান বলেন, ১৪ তারিখ সম্মেলনে কাউন্সিলররা স্বাধীনতার পক্ষের প্রার্থীদের সাথে থাকবেন। রাজাকার বা তাদের পরিবারকে বর্জন করে মুক্তিযোদ্ধের স্বপক্ষের একটি কমিটি বিয়ানীবাজারকে উপহার দিবেন।

বিয়ানীবাজার উপজে'লা আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল হাসিব মনিয়া জানান, সম্মেলনকে প্রভাবিত করতে আমা'র বি'রুদ্ধে প্রতিপক্ষ মহল কাউন্সিলরদের বি'ভ্রান্ত করতে বিভিন্ন ষড়যন্ত্রমূলক প্রচারনা করে যাচ্ছেন। তবে এসবকে পাশ কাটিয়ে অ'তীতে দলের প্রতি আমা'র অবদানকে লক্ষ্য করে কাউন্সিলররা স্বীকৃতি দিবেন।

সম্মেলন প্রস্তুত কমিটির আহ্বায়ক আব্দুল আহাদ কলা প্রতিবেদককে বলেন, সম্মেলনের প্রস্তুতি শেষ পর্যায়ে, অন্যান্য উপজে'লার চেয়ে বিয়ানীবাজারের সম্মেলনকে জাকজমকপূর্ন করে তুলতে সম্মেলন প্রস্তুত কমিটি কাজ করে যাচ্ছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে কাঁদা ছোড়াছোড়ির ব্যাপারে তিনি বলেন, যারা প্রার্থীতা ঘোষনা করেছেন সবাই আওয়ামীলীগ, দীর্ঘদিন থেকে আওয়ামীলীগের রাজনীতির সাথে জ'ড়িত, তাই দিনশেষে সবাই একসাথে একটি প্রানবন্ত সম্মেলন উপহার দিবেন।

এদিকে, আগামী ১৪ নভেম্বর সম্মেলনে প্রধান অ'তিথি হিসাবে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস, সিলেট-৬ আসনের সংসদ সদস্য, সাবেক শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইস'লাম নাহিদ এমপি, বিশেষ অ'তিথি হিসাবে উপস্থিত থাকবেন সিলেট অঞ্চলের দায়িত্বপ্রাপ্ত বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহম'দ হোসেন, কেন্দ্রিয় আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, সাবেক সিসিক মেয়র বদর উদ্দিন আহম'দ কাম'রান, জে'লা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক শফিকুর রহমান, যুগ্ন সাধারন সম্পাদক নাসির উদ্দিন খান প্রমুখ।

সম্মেলনে উদ্বোধন করবেন জে'লা আওয়ামীলীগের সভাপতি এ্যাডভোকেট লুতফুর রহমান।