নানা অনিয়ম ও সহকর্মীকে যৌ'ন নিপিড়নের অ'ভিযোগে কাদিপুর ইউপির উদ্যোক্তাকে অব্যাহতি

কুলাউড়া প্রতিনিধিঃঃ কুলাউড়া উপজে'লার কাদিপুর ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা সুকুমা'র মল্লিক সম্বুর বি'রুদ্ধে নানা অনিয়ম ও সহকর্মীকে যৌ'ন নিপিড়নের অ'ভিযোগ উঠেছে। যারফলে ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, মেম্বারগন সকলেই সম্মত হয়ে রেজুলেশন করে তাকে উদ্যোক্তার পদ থেকে অব্যাহতি দিয়েছেন। বুধবার বিকালে ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে এমনটি জানালেন ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মো. সাতির মিয়া।

সংবাদ সম্মেলনে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান বলেন, উপজে'লার ৬নং কাদিপুর ইউনিয়নের ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা সুকুমা'র মল্লিক দায়িত্ব পালনে দীর্ঘদিন ধরে স্থানীয়দের জন্ম নিবন্ধন সনদ প্রদানে জালিয়াতি ও সরকারী নির্ধারিত ফি থেকে তিনগুণ বেশি টাকা নিয়ে ইউনিয়নের বাসিন্দাদের হয়রানীর অ'ভিযোগ আমাদের কাছে আসছে। প্রথমে আম'রা এসব অ'ভিযোগের গো'পনে ত'দন্ত করে প্রাথমিক সত্যতা পাই। পরে পরিষদের সচিব, নির্বাচিত ইউপি সদস্যদের উপস্থিতিতে সর্বসম্মতিক্রমে পরিষদের সাধারণ সভা আহ্বান করে তাকে অব্যাহতি প্রদান করে একটি রেজুলেশন গৃহীত হয়।

এদিকে ইউনিয়ন পরিষদের ওই সাধারণ সভায় সুকুমা'র মল্লিকের বি'রুদ্ধে তারই অফিসের মহিলা উদ্যোক্তাকে অফিস চলাকালীন সময় বিভিন্ন অ'নৈতিক প্রস্তাব এমনকি জো'রপূর্বক শরীরে স্প'র্শ করারও সত্যতা পাওয়া যায়।

কাদিপুর ইউনিয়নের মহিলা উদ্যোক্তা বলেন, সুকুমা'র মল্লিককে আমি অফিসিয়াল নিয়ম অনুযায়ী শ্রদ্বাপূর্ণ আচরণ করে দায়িত্বপালন করতাম। কিন্তু তিনি আমাকে অ'নৈতিক প্রস্তাব দিয়েছেন, এমনকি মু'সলিম থেকে হিন্দু বানিয়ে বিয়ে করার চাপ সৃষ্টি করেন। গত ঈদ-উল আযহার পর আমাকে ভারতে বেড়ানোর প্রস্তাব দিয়ে বলেন সেখানে একটি বড় মন্দির আছে। তুমি আমা'র সাথে গিয়ে হিন্দু ধ'র্ম গ্রহণ করে দুজনে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হওয়ার প্রস্তাব দেন। ক্ষোভ প্রকাশ করে মহিলা উদ্যোক্তা আরো বলেন, সুকুৃমা'র মল্লিক শরীরে স্প'র্শ করে যৌ'ন নিপড়িন করেন বিষয়টি লজ্জা ও ভ'য়ে প্রথমে কাউকে বলিনি। পরে অ'তিষ্ঠ হয়ে পরিষদকে জানালে ঘটনাটির সত্যতা পেয়ে সুকুমা'রকে অব্যাহতি দেয়া হয়। এই অব্যাহতিতে তার বিচার যেন শেষ না হয়। আমি চাই আর যাতে কোন মহিলা যৌ'ন নিপিড়নের শিকার না হয় এই প্রতিবাদ প্রয়োজনে উর্ধতন কতৃপক্ষের কাছে করব।

এ বিষয়ে জানতে উদ্যোক্তা সুকুমা'র মল্লিকের মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে আনিত অ'ভিযোগটি অস্বীকার করে বলেন, একটি মহল পরিক'ল্পিতভাবে আমা'র সাথে ষড়ডন্ত্র করছে।

কুলাউড়া উপজে'লা নির্বাহী কর্মক'র্তা এটিএম ফরহাদ চৌধুরী বলেন, তাকে অব্যাহতি দিয়ে ইউনিয়ন পরিষদের রেজুলেশন হাতে পেয়েছি। বিষয়টি ত'দন্ত স্বাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।