আলীরগাঁও স্কুলের ৩ ছা'ত্রীকে অ'পরণনের দায়ে থা'নায় অ'ভিযোগ, আপোষ নিষ্পত্তিতে পুনরায় ১৫ মৌজার বৈঠকের ডাক

জৈন্তাপুর প্রতিনিধিঃ গোয়াইনঘাট উপজে'লার আলীরগাঁও উচ্চ বিদ্যালয়ের ৩ ছা'ত্রীকে অ'পহরনকে কেন্দ্র করে ১৫ মৌজার সাধারণ মানুষ আতঙ্কিত। শিক্ষার্থীদের পরিবারও শিক্ষার্থীরা বিচারের জন্য এখন পু'লিশ ও পরিচালনা কমিটির ধারে ধারে ঘুরছে। সঠিক বিচার না হলে এলাকায় পুনরায় অ'প্রিতীকর ঘটনার আশ'ঙ্কা। নিরাপত্তা না পেলে অ'ভিভাবকরা সন্তানদের স্কুলে পাঠাতে পারবে না। সমজতার আশ্বা'সে অ'ভিযোগকারী কাছ থেকে জিডির আলোকে মা'মলা স্থগিতের আবেদন।

সরজমিন পরিদর্শন ও অ'ভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গত ৩০শে সেপ্টম্বর প্রতিদিনের মতো আলীরগাঁও উচ্চ বিদ্যালয়ের ৩ ছা'ত্রী ক্লাসের জন্য স্কুলে আসে। ক্লাস শেষে বাড়ি ফিরতে গাড়ির জন্য স্কুলের সম্মূখে অ'পেক্ষা করতে থাকে আলীরগাঁও উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণীর ছা'ত্রী ও আলীরগাঁও ইউনিয়নের খলাগ্রাম এর বাসিন্দা সিদ্দেক আলীর শি'শু কন্যা, একই গ্রামের ছায়ফুল ইস'লামের শি'শু কন্যা ৭ম শ্রেণীর ছা'ত্রী, এবং ধ'র্ম গ্রামের কুটি মিয়ার শি'শু কন্যা ১০ম শ্রেণীর ছা'ত্রী। পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী নাম্বার বিহীন সিএনজি অটো রিক্সা নিয়ে ড্রাইভার সৌরভ কুমা'র দেব দাড়িয়ে ছিল, সিএনজি টির পিছনের ৩টি সীট খালি থাকায় ছা'ত্রীরা সিএনজিতে উঠে পড়ে, সাথে সাথে সামনে খালি সীটে উঠে পড়ে আতিকুর রহমান ও নূর আহম'দ নামে দুই যুবক। সিএনজিটি ধ'র্ম গ্রামে যাওয়ার পর এক ছা'ত্রী চালককে নামিয়ে দিতে বল্লে গাড়ি না থামিয়ে সামনের দিকে চালিয়ে যেতে থাকে ড্রাইভার এসময় ছা'ত্রীরা চি'ৎকার করলে কিছু দূর গিয়ে এক ছা'ত্রীকে নামিয়ে দিয়ে অ'পর দুই ছা'ত্রীকে নিয়ে পালাতে থাকে। বিষয়টি বুঝতে পেরে ছা'ত্রীরা স্বজুরে চি'ৎকার করতে থাকে। এমন সময় বিপরীত দিক থেকে একটি গাড়ি আসতে দেখে অ'পহ'রণকারীরা ছা'ত্রীদের নামিয়ে দিয়ে দ্রুত সিএনজি নিয়ে পালিয়ে যায়।

অ'পহরনকারীরা হল গোয়াইনঘাট উপজে'লার বারোহাল খাসমৌজার নূর উদ্দিন এর ছে'লে আতিকুর রহমান (২৫), সঞ্জয় কুমা'র দেব এর ছে'লে সৌরভ কুমা'র দেব(২০) ও মৃ'ত. আব্বাস আলীর ছে'লে নূর আহম'দ (২৫)। ঘটনার পরের দিন ১ অক্টোবর অ'পহরিত ৩ ছা'ত্রী প্রধান শিক্ষক মঞ্জুর আহম'দকে বিষয়টি জানালে তিনি বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আবুল হাসনাত কে অবহিত করেন এবং অ'ভিযুক্তদের স্কুলে ডেকে নিয়ে আসেন। অ'ভিযুক্তরা ঘটনার সত্যতা স্বীকার করলে বিষয়টি স্থানীয়ভাবে নিস্পত্তির জন্য ৩ অক্টোবর ম্যানেজিং কমিটির সভাপতির সভাপতিত্বে এক সালিশ বৈঠক ডা'কা হয়।

এ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আবুল হাসনাত, অ'ভিভাবক সদস্য সাংবাদিক মঞ্জুর আহম'দ, ইউপি সদস্য আব্দুল গণি বতাই, জালাল উদ্দিন, সাবেক ইউপি সদস্য জামান আহম'দ, ইলিয়াছ আলী, আবুল কাসেম, ই'মাম উদ্দিন, বিদ্যালয়ের সহাকারী শিক্ষক আব্দুশ শুকুর, নজরুল ইস'লাম সহ এলাকার গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ। বৈঠক চলাকালীন সময়ে হঠাৎ করে বারহাল খাসমৌজার সাহেদ আহম'দ, কালা মিয়া, সুলতান আহম'দ, আলমাছ উদ্দিন, পান্না দেব নিলয় সহ ১৮ থেকে ২০ জন যুবক দেশীয় অ'স্ত্র সস্ত্রে সজ্জিত হয়ে স্কুলের হল রুমের ভিতরে প্রবেশ করে বৈঠক থেকে অ'পহ'রণকারীদের ছিনিয়ে নিয়ে যায়। পরবর্তীতে আলীরগাঁও উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা সারী গোয়াইনঘাট সড়কের বারহাল এলাকায় সড়ক অবরোধ করে প্রতিবাদ করতে থাকে। এবং অ'পহ'রণকারী ও অ'পহ'রণকারীদের বৈঠক থেকে ছিনিয়ে নেওয়াকারীদের অবিলম্বে গ্রে'ফতারের দাবী জানায়।

ঘটনার সংবাদ পেয়ে গোয়াইনঘাট থা'নার ওসি (ত'দন্ত) হিল্লোল রায় ঘটনাস্থলে ছুটে এসে স্থানীয় মুরব্বিদের সহযোগিতায় ছাত্রদের অবরোধ তুলে দেয়া হয় এবং ৪৮ ঘন্টার মধ্যে অ'প'রাধীদের আইনের আওতায় নিয়ে আসার আশ্বা'স দেন ওসি। এরপর থেকে দুই দফায় ১৫ মৌজার বৈঠক ডা'কা হলেও একমাত্র খাসমৌজা ছাড়া ১৪ মৌজার কোন লোক বৈঠকে উপস্থিত হয়নি, এতে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে অ'পহরিত ৩ ছা'ত্রী ও তার পরিবার। স্থানীয়ভাবে কোন সমাধান না হওয়াতে গত ৩রা অক্টোবর আলীরগাঁও উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী খাদিজা বেগম এর পিতা সিদ্দেক আলী গোয়ইনঘাট থা'নায় একটি অ'ভিযোগ দাখিল করেন এ সময় তার সাথে ছিলেন স্কুলের প্রধান শিক্ষক ও ম্যানেচিং কমিটির সভাপতি।

অ'ভিযোগ টি ওসি ত'দন্তর কাছে পৌছার পর গোয়াইনঘাট উপজে'লার আলীরগাঁও ইউনিয়নের আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ফারুক আহম'দ ফোন দিয়ে অ'ভিযোগটি স্থানীয়ভাবে নিস্পত্তি করে দেয়ার আশ্বা'সে, ওসি ত'দন্ত বাদীর কাছ থেকে অ'পর একটি জিডি মুলে অ'ভিযোগটি স্থগিত করে ৪৮ ঘন্টার মধ্যে সমাধানে সময় বেধে দেন। এর পর থেকে এলাকার গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ বিষয়টি আপোষের মাধ্যমে নিষ্পত্তির লক্ষ্যে অ'পহরিত ছা'ত্রীদের অ'ভিভাবকদের সাথে কয়েক দফায় বৈঠক করেও সুষ্ঠ কোন সমাধানে পৌছিতে না পারায় বৃহস্পতিবার পুনরায় ১৫ মৌজার বৈঠক ডা'কা হয়েছে, আগামী ১৪ই অক্টোবর থেকে ২০ সনের এস এস সি পরীক্ষার্থীদের মূলায়ন পরীক্ষার সময় নির্ধারণ রয়েছে এর মধ্যে বিষয়টির সুষ্ঠু সমাধান না হলে শিক্ষার্থীরা পুরনায় আ'ন্দোলনের প্রস্তুতি নিবে।

অ'ভিযোগকারী সিদ্দেক আলী জানান, আমা'র মে'য়ে সহ ৩ জন ছা'ত্রীকে সিএনজি দিয়ে স্থানীয় ৩ যুবক স্কুলের সম্মুখ থেকে তুলে নিয়ে যায়। আমি এর সুষ্ঠু বিচার চাই। স্থানয়ভাবে সমাধানে বিলম্ব হওয়ায় থা'নায় একটি লিখিত অ'ভিযোগ করেছি। আমা'র কাছ থেকেও একটি অবগত করণ প্রসঙ্গে লিখিত রেখেছেন থা'না কর্তৃপক্ষ।

এ ব্যাপারে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মঞ্জুর আহম'দ বলেন, বিয়টি শুনার সাথে সাথে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি সহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যাক্তিদের নিয়ে সমাধানের চেষ্টা করেছি। সমাধান না হওয়াতে সবার পরাম'র্শে ছা'ত্রীর অ'ভিবাবকের মাধ্যমে একটি অ'ভিযোগ দেওয়া হয়। পরবর্তীতে কি হয়েছে স্কুল বন্ধ থাকায় তা আমি বলতে পারছি না।

স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি আবুল হাসনাত জানান, আমা'রা এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের সহযোগিতায় অ'ভিযুক্ত যুবকদের নিয়ে স্কুলে বৈঠকে বসেছিলাম, হঠাৎ করে কয়েক যুবক অ'ভিযুক্ত যুবকদের জো'র পূর্বক ছিনিয়ে নিয়ে যায়। এরপর ক্ষুব্ধ হয়ে স্কুলের শিক্ষার্থীরা সড়কে আ'ন্দোলনে নেমে পড়ে। একপর্যায়ে গোয়াইঘাট থা'নায় একজন অ'ভিবাবককে বাদী করে অ'ভিযোগ দিলে আলীরগাও ইউনিয়নের আওয়ামীলিগের সাধারন সম্পাদক থা'নার ওসি ত'দন্তকে বিষয়টি আপোষ নিষ্পত্তির মাধ্যমে সমাধান করতে সময় চেয়ে নিয়ে আসেন। আগামীকাল আম'রা আবারও বৈঠকে বসব সমাধান না হলে আইনি প্রক্রিয়ায় বিষয়টি সমাধান হবে।

অন্যদিকে গোয়াইনঘাট থা'নার ভারপ্রাপ্ত কর্মক'র্তা আব্দুল আহাদ এ প্রতিবেদককে বলেন, ঘটনার পর থেকে ঘটনা স্থলে গোয়াইনঘাট থা'না পু'লিশ সার্বক্ষণিক মোতায়ন রয়েছে। অ'ভিযোগ আসার পর পর স্থানীয় সালিশ ব্যক্তিত্যরা বিষয়টি স্থানীয়ভাবে সমাধানের লক্ষে থা'না থেকে সময় চেয়ে নিয়েছেন। সমাধান না হলে অ'ভিযুক্তদের আ'ট'ক করতে আম'রা প্রয়েজনীয় ব্যবস্থা নেব।