কানাইঘাটে নদীতে ডুবে হারুন নিখোঁজের ১২দিন; মায়ের চোখের অশ্রু দেখবে কে?

কানাইঘাট প্রতিনিধি : কানাইঘাটে নিখোঁজ হারুনের মায়ের চোখের অশ্রু অঝরে পড়তেছে। বারে বারে চোখ মূর্ছনায় ছেলের কথা ভেবে অঝরে চোখের পানি ফেলতেছেন। ছেলের লাশ ফিরে পাবার জন্য আকুলতা প্রকাশ করেছেন।

নিখোঁজ হারুন আহমদের বাড়ী কানাইঘাট উপজেলার লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ইউপির উত্তর লক্ষীপ্রসাদ গ্রামের মৃত সৈয়দ হোসেনের ছেলে। সে গত  পহেলা মে সকাল অনুমান সাড়ে ৭টায় জ্বালানী কাঠ ধরতে গিয়ে উজান থেকে নেমে আসা প্রবল ¯্রােতের মধ্যে লোভানদীতে তলিয়ে যায়। সাথে সাথে আশপাশের স্থানীয় জনসাধারণ নিখোঁজ হারুন আহমদ’কে ব্যাপক খোঁজাখোজি করলেও কোন খোঁজ পাওয়া যায়নি। স্থানীয় জনসাধারণ ঐদিন উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলের প্রবল ¯্রােতের মধ্যে জাল ফেলে নিখোঁজ হারুন আহমদের লাশ ফিরে পেতে ব্যাপক চেষ্টা করলেও ব্যর্থ হয়েছেন।

এ রিপোর্ট লেখা অবদি পর্যন্ত হারুন নিখোঁজের ১২ দিন পূর্  হয়েছে আজও হারুনের কোন সন্ধান মিলেনি। জানা গেছে, নিখোঁজ হারুন আহমদ পরিবারে তিন ভাই ও দুই বোন, বাবা কয়েক বছর পূর্বে মারা গেছেন। হারুন আহমদের বড় এক ভাই প্রবাসে থাকেন। তা হারুন আহমদ গত ৬ মে সৌদি আরবে যাওয়ার কথা ছিলো।

এরই মধ্যেগত পহেলা মে সকাল অনুমান সাড়ে ৭টায় হারুন উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলের প্রবল ্রাতের মধ্যে লোভা নদী থেকে জ্বালানি কাঠ সংগ্রহ করতে গিয়ে নদীতে তলিয়ে যায়। এরপর হইতে ধ্যাবদিপর্যন্ত হারুনের লাশ না পাওয়ায় পরিবারের শোকের মাতম চলছে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য শামিম উদ্দিন জানান, হারুন আহমদ এলাকার একটি ভালো লোক ছিল। তাহার এমন অবস্থার মধ্যে দিয়ে জীবন দিতে হবে কেউ কল্পনা করেনি। আমরা হারুনের পরিবারকে শান্তনা দেওয়ার চেষ্টা করেছি। কিন্তু মায়ের বুক খালি হয়ে যাওয়া সন্তান নিখোঁজের শোক তার মা কেমনে ভুলবেন। তিনি প্রতিদিন নদীর ধারে এসে হারুনকে পাওয়ার আশায় ব্যাকুল হয়ে থাকেন।