‘নারীবাদীরা যা খুশি বলুক, মেয়েদের ক্রিকেটার বানাব না’

নিউজ ডেস্ক”পাকিস্তানের সাবেক তারকা অলরাউন্ডার শহীদ আফ্রিদির আত্মজীবনী ‘গেম চেঞ্জার’ প্রকাশের পরই হৈ চৈ ফেলে দিয়েছে। বইটিতে বিভিন্ন বিষয়ে সোজাসাপটা কথা বলে অনেকের সমালোচনা সইতে হয়েছে আবার অনেকের প্রশংসা ও পেয়েছেন তিনি। পেয়েছেন সমর্থকদের সাধুবাদ।

খেলোয়াড়ি জীবনের পাশাপাশি পারিবারিক জীবন নিয়েও বইতে কথা বলেছেন ওয়ানডে ক্রিকেটের সবচেয়ে বেশি ছক্কার রেকর্ডধারী এই অলরাউন্ডার। ব্যক্তিগত জীবনে চার কন্যা সন্তানের জনক আফ্রিদি। ক্রিকেটারের মেয়েরা বড় হয়ে ক্রিকেটার হবে কি না এমন প্রশ্ন তাকে প্রায়শই শুনতে হয়েছে সাংবাদিক বা সমর্থকদের কাছ থেকে।

আত্মজীবনীতে এই প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন বুমবুম আফ্রিদি। কোন অজুহাত বা এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে করে সোজা ব্যাটে জবাব দিয়েছেন ‘না’। অনেক দিন ধরেই বাউন্সার হয়ে আসা এই প্রশ্নটিকে সোজা পুল করে সীমানার বাইরে আছড়ে ফেলেছেন। শহীদ আফ্রিদি বলেছেন, তার মেয়েদের ক্রিকেট খেলতে দেবেন না। কারণটা ধর্মীয় ও সামাজিক।

আফ্রিদি লিখেছেন, ‘(তিন কন্যার মধ্যে) আকসা দশম ও আনশা নবম শ্রেণিতে পড়ছে। তারা খেলাধূলা ও পড়াশুনায় খুবই ভালো করছে। ছোট দুই মেয়ে আজওয়া ও আসমারা সুন্দর পোশাক পরতে পছন্দ করে।’

এরপরই আফ্রিদি লিখেছেন, ‘যে কোন খেলার অনুমতি আছে তাদের, তবে সেটা শুধুই ইনডোরে। ক্রিকেট? না সেটা আমার কন্যাদের জন্য নয়। চাইলে সব ইনডোর গেমসের অনুমতি আছে তাদের; কিন্তু লোকজনের সামনে মাঠে খেলতে দেব না আমার কন্যাদের’।

এই সিদ্ধান্তের কারণ হিসেবে শহীদ আফ্রিদি লিখেছেন, ‘সামাজিক ও ধর্মী কারণে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। মেয়েদের মা আমার সাথে একমত। নারীবাদীরা যা খুশি বলুক, একজন রক্ষণশীল পাকিস্তানি বাবা হিসেব আমি আমর সিদ্ধান্ত নিয়েছি’।